বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির জন্য বড় বাধা ছিল এ ধরনের গাড়ি চলাচলে রাস্তা বা আকাশপথের উপযোগী কোনো নির্দিষ্ট নীতিমালা না থাকা।

পাল-ভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রবার্ট দিনগেমাংসি বলেন, উড়ুক্কু গাড়ির ক্ষেত্রে নীতিমালা তৈরির বিষয়টি বড়ই ধাঁধাপূর্ণ ছিল। এটি গাড়ি, নাকি উড়ুক্কু যানের নীতিমালা মানবে, তা ঠিক করা প্রয়োজন।

লিবার্টি মূলত দুই সিটের ত্রিচক্রযান। এটি রাস্তায় চলতে পারে আবার পাখা মেলে আকাশেও উড়তে পারে। তবে এ উড়ুক্কু গাড়ি চালাতে উড়োজাহাজ চালানোর লাইসেন্স প্রয়োজন পড়ে। এটি ঘণ্টায় ১২০ মাইল গতিতে উড়তে পারে। এক ট্যাংক ভর্তি জ্বালানি নিয়ে ৩১০ মাইল পর্যন্ত যেতে পারে। এতে থাকা প্রপেলারের কারণে এটি হেলিকপ্টারের মতোই কাজ করে। ল্যান্ডিংয়ের সময় প্রপেলার ভাঁজ হয়ে থাকে এবং এর লেজ রাস্তায় চলার উপযোগী হয়ে যায়।

রবার্ট দিনগেমাংসি বলেন, গাড়ি ও উড়ুক্কু যানের মিশেলে তৈরি হাইব্রিড এ যান গুরুত্বপূর্ণ একটি ক্ষেত্র। এ ক্ষেত্রে পাল-ভি প্রথম হলেও আরও অনেক প্রতিষ্ঠান উঠে আসবে।

করোনা মহামারির কারণে এ ধরনের উড়ুক্কু যানের প্রতি মানুষের আগ্রহ ও চাহিদা বাড়তে দেখেছেন গবেষকেরা। এতে দুজন যাওয়া যায় বলে সংক্রমণের ঝুঁকি অনেক কম থাকে

শুরুতে ৯০টি গাড়ির সীমিত সংস্করণ ছাড়ছে পাল-ভি। এর দাম হতে পারে ৫ লাখ ৮৩ হাজার ৫১৫ মার্কিন ডলার।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন