default-image

ডিজিটাল উদ্যোক্তা গড়ার প্ল্যাটফর্ম আর-ভেঞ্চারস ২.০ আয়োজনে সর্বোচ্চ ১ কোটি ১৫ লাখ টাকার বিনিয়োগ পেয়েছে সিগমাইন্ড নামের একটি উদ্যোগ। প্রতিষ্ঠানটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক সেবা প্রদান করে থাকে। সম্প্রতি রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় আর-ভেঞ্চার ২.০ এর ইনভেস্টমেন্ট ডে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে ১২টি উদ্যোক্তা দল অংশগ্রহণ করে। অনুষ্ঠানে উদ্যোক্তাদের জন্য ২ কোটি টাকার বেশি বিনিয়োগের ঘোষণা দেওয়া হয়।

আইসিটি বিভাগের অধীন স্টার্ট-আপ বাংলাদেশ উদ্যোক্তাদের ৭৩ লাখ টাকা পর্যন্ত গ্র্যান্ট প্রদান করেছে। প্রতিযোগিতাটির আয়োজন করে মোবাইল অপারেটর রবি।

সিগমাইন্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর তাবাসসুম বলেন, নতুন বিনিয়োগ পেয়ে তাঁরা খুশি। বাংলাদেশের প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন তরুণ উদ্যোক্তাকে নিয়ে তাদের এ স্টার্টআপ তৈরি হয়েছে। তাঁরা দুই বছরের বেশি সময় ধরে গবেষণা করেছেন। এরপর সফটওয়্যার উন্নয়ন করে পরীক্ষামূলক চালিয়েছেন। বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি কয়েকটি স্থানে তাঁদের এ ট্র্যাকিং সফটওয়্যারের ব্যবহার শুরু হয়েছে।

আর-ভেঞ্চারে অংশগ্রহণকারী অন্য স্টার্ট-আপগুলোর মধ্যে ভেলবেট বক্স সাবস্ক্রিপশনের মাধ্যমে নারীদের স্যানিটারি পণ্য সরবরাহ করে থাকে, ভেন্ডিং মেশিনের মাধ্যমে নগদ অর্থ ছাড়া ডিজটাল টি স্টল সেবা প্রদান করে ডিজিটং, ফ্রিল্যান্সার ও ক্লায়েন্টদের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপনকারী একটি প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে উপার্জন, আলো একটি মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম যারা পাবলিক বাসে স্ক্রিন সরবরাহ করে, অনলাইনে ফরমাশ নেওয়ার মাধ্যমে জ্বালানি সরবরাহ করে ফুয়েলবি। অনলাইন টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে এডুমেট, বাসায় তৈরি খাবার ভোক্তার কাছে পৌঁছে দেয় কুকঅ্যান্ডস, অন ডিমান্ড গৃহকর্মী বা গৃহস্থালি কাজের জন্য কর্মী সরবরাহের সেবা প্রদান করে হ্যালো টাস্ক, টেলিমেডিসিন সেবা প্রদান করে ডক্টর বন্ধু, খামার ব্যবস্থাপানার জন্য আইওটি ডিভাইস সরবরাহ করে খামারি এবং দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক চশমা সরবরাহ করে আলো।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উদ্যোক্তাদের মধ্যে বিনিয়োগের অর্থ তুলে দেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ।

বিজ্ঞাপন
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন