বিজ্ঞাপন

ওয়েবিনারে বলা হয়, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে দেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। সরকারের জোরালো পদক্ষেপে গত কয়েক বছরে ডিজিটাল বা তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর প্রশাসনব্যবস্থা, ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষি, স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, জনসেবাসহ বিভিন্ন খাতে উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন লক্ষ করা গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ই-কমার্স মূলত অনলাইনে ব্যবসা পরিচালনার একটি আধুনিক ডিজিটাল মাধ্যম। যা সরকারের বিভিন্ন ক্ষেত্রের মধ্যে সমন্বয়, ব্যবসায়িক লেনদেন ও যোগাযোগ সহজীকরণ এবং সারা দেশে ব্যাপক হারে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে। ক্রমবিকাশমান বিশ্বায়ন প্রক্রিয়ার কারণে ই-কমার্সের পরিধি ও জনপ্রিয়তা বিশ্বব্যাপী বেড়ে চলেছে। ২০১৬ সালে বাংলাদেশে ই-কমার্স খাতে ৭২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ঘটেছে, যা দেশে ই-কমার্সের ইতিহাসে অত্যন্ত আশাপ্রদ অগ্রগতি।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বিশেষ অতিথি ছিলেন চ্যানেল আইয়ের পরিচালক শাইখ সিরাজ ও এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান। ওয়েবিনারে সভাপতিত্ব ও সঞ্চালনা করেন বিবিএফের চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠাতা মাসুদ এ খান।

আলোচনায় অংশ নেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাফিজুর রহমান, এসবিকে টেক ভেঞ্চারের প্রতিষ্ঠাতা সোনিয়া বশির কবির, ওয়ার্ল্ডট্রাকের চেয়ারম্যান কায়সার হাবিব, ই-ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াহেদ, ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক সাবিহা জারিন অরোনা প্রমুখ। ওয়েবিনারের গোল্ড পার্টনার ছিল ওয়ার্ল্ডট্রাক। মিডিয়া পার্টনার দ্য ডেইলি স্টার ও ইউএনবি

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন