নতুন এই ল্যাপটপে ব্যবহার করা হয়েছে ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চির ফুল এইচডি ম্যাট আইপিএস এলইডি ব্যাকলিট ডিসপ্লে। এই ল্যাপটপের উচ্চগতি নিশ্চিতে আছে ইন্টেলের দশম প্রজন্মের ২ দশমিক ৬ গিগাহার্টজ ক্লকরেটের কোর আই সেভেন ১০৭৫০ এইচ ৬-কোর প্রসেসর। মেমোরি ডিভাইস হিসেবে রয়েছে ১৬ গিগাবাইট ডিডিআর ৪ র‍্যাম যা ৬৪ জিবি পর্যন্ত বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে। শক্তিশালী ও ভারী গেম অনায়াসে চলার জন্য এই ল্যাপটপে গ্রাফিকস·হিসেবে আছে এনভিডিয়া জিফোর্স জিটিএ·১৬৫০ মডেলের ৪ গিগাবাইট জিডিডিআর ৬ ভিডিও র‍্যাম।

ওয়ালটন কম্পিউটারের সিইও মো. লিয়াকত আলী বলেন, গেমিং ল্যাপটপ সাধারণত হাই কনফিগারেশনের হয়। এতে অন্যান্য সাধারণ ল্যাপটপের চেয়ে দামটাও বেশি হয়। যার ফলে ইচ্ছা থাকলেও অনেক ক্রেতার জন্য গেমিং ল্যাপটপ কেনা সম্ভব হয় না। এসব বিষয় বিবেচনা করেই সাশ্রয়ী মূল্যে সর্বাধুনিক ফিচারের নতুন মডেলের গেমিং ল্যাপটপটি বাজারে ছাড়া হয়েছে। গেম খেলার পাশাপাশি এই ল্যাপটপ দিয়ে ডিজাইন, সিমুলেশন এবং গ্রাফিকসের ভারী কাজ করা যাবে। বাজারে থাকা একই কনফিগারেশনের অন্যান্য ল্যাপটপের চেয়ে কেরোন্ডা জিএ·সেভেনটেনজি প্রো দামে অনেক সাশ্রয়ী।