বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

গত মাসে প্রকাশিত জুলাইয়ের সূচকে ১৩৯টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৩৫তম। সে সময় মোবাইল ইন্টারনেটের গড় গতি ছিল ১২ দশমিক ৬ এমবিপিএস। নতুন তালিকায় গতি সামান্য বাড়লেও সেটা বৈশ্বিক গড় গতি বৃদ্ধির হারের তুলনায় বেশ কম।

চলতি মাসে প্রকাশিত ওকলার আরেকটি সূচকে দেখা যায়, গত এক বছরে বিশ্বব্যাপী মোবাইল ইন্টারনেটের গতি গড়ে বেড়েছে ৫৯ দশমিক ৫ শতাংশ। একই মেয়াদে বাংলাদেশে মোবাইল ইন্টারনেটের গতি বৃদ্ধির হার ১৫ দশমিক ৩৮ শতাংশ, যা বৈশ্বিক গড়ের এক-চতুর্থাংশের সামান্য বেশি।

আগস্টে বিশ্বব্যাপী মোবাইল ইন্টারনেটের গড় গতি ছিল ৫৬ দশমিক ৭৪ এমবিপিএস। আর তালিকার প্রথম দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতে ছিল ১৯৫ দশমিক ৫২ এমবিপিএস।

default-image

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) হিসাবে, জুলাই শেষে দেশে মোবাইল ইন্টারনেটের ব্যবহারকারী দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৩৬ লাখ ৯০ হাজারে, যা জুনের চেয়ে ২ দশমিক ৫২ শতাংশ বেশি। একই হিসাবে, দেশের ব্রডব্যান্ডের গ্রাহকসংখ্যা ১ কোটির কিছু বেশি। সর্বশেষ ৯০ দিনে একবার ইন্টারনেটে সক্রিয় হলেই তাঁকে গ্রাহক হিসেবে গণ্য করা হয়।

মোবাইল ইন্টারনেটের গতিতে সার্কভুক্ত অন্য দেশগুলোর মধ্যে ভারত চার ধাপ পিছিয়ে ১২৬ নম্বরে, নেপাল দুই ধাপ পিছিয়ে ১১৪ নম্বরে, মালদ্বীপ এক ধাপ এগিয়ে ৪০ নম্বরে, পাকিস্তান সাত ধাপ পিছিয়ে ১২০ নম্বরে, শ্রীলঙ্কা দুই ধাপ পিছিয়ে ১৩০ নম্বরে এবং আফগানিস্তান এক ধাপ পিছিয়ে ১৪০ নম্বরে রয়েছে। মোবাইল ইন্টারনেটের গতির তালিকায় ভুটান নেই।

মোবাইল ইন্টারনেটের গতির সূচকে দুই ধাপ পেছালেও ফিক্সড ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট গতির সূচকে দুই ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। ১৮০ দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৯৭তম। ওকলার হিসাবে আগস্টে দেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের গড় গতি ছিল ৩৮ দশমিক ৯৮ এমবিপিএস।

এখানে কেবল ডাউনলোডের গতি উল্লেখ করা হয়েছে।
প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন