বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, তিন দিনব্যাপী সামিটের শেষ দিন সোমবার (২৫ অক্টোবর) অ্যাপ্লিকেশনটির ডেমো তুলে ধরেন ডেটাফুলের প্রতিষ্ঠাতা পলাশ দত্ত। তিনটি থিমে বিভক্ত সামিটের এ দিনের থিম ছিল জনকল্যাণে উন্মুক্ত ডেটার ব্যবহার।
পলাশ দত্ত বলেন, এই অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে অভিভাবকেরা এক ক্লিকে তাঁদের পছন্দের স্কুল সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। এ জন্য তাঁদের সময় ও অর্থ ব্যয় করে স্কুলে-স্কুলে যেতে হবে না। এই অ্যাপ্লিকেশনে অভিভাবক চাইলে তাঁর পছন্দের একাধিক স্কুলের তথ্য তুলনাও করতে পারবেন।

এদিন আমেরিকাভিত্তিক ওপেন ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ এবং নেপালের ফ্রিডম ফোরামও অতিথি হিসেবে তাদের ডেটাভিত্তিক জনকল্যাণমুখী কাজের ওপর আলোকপাত করেন।
অনলাইন প্ল্যাটফর্ম জুমে আয়োজিত বাংলাদেশ ওপেন ডেটা সামিটের শেষ দিনের অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ডেটাফুলের গবেষক ও সামিট সমন্বয়কারী মো. আবু বকর সিদ্দিক।

তিন দিনব্যাপী সামিটে অংশ নেওয়া অন্য প্রতিষ্ঠানগুলো হলো এটুআই, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট, ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব আইসিটি ইন ডেভেলপমেন্ট, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব গভর্ন্যান্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট ও সাউথ এশিয়া সেন্টার ফর মিডিয়া ডেভেলপমেন্ট, ভারতের ডেটালিডস, নেপালের ফ্রিডম ফোরাম ও জার্মানির ডিডব্লিউ একাডেমি।

প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন