আরিফুল হাসান অপু
আরিফুল হাসান অপু

রুমভর্তি শিশু-কিশোর। সবার চোখে–মুখে অদ্ভুত প্রশ্নের ঘুরপাক। কেউ চাইছে ডেটা ব্যবহার করে জটিল কোনো সমস্যার সমাধান করতে, কেউবা প্রতিবন্ধীদের জন্য বানাচ্ছে বিশেষ কোনো মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন। পরিবেশ সংরক্ষণেও কাজ করার চেষ্টা করছে কেউ কেউ। ২০১৬ সালে এমন চমৎকার এক হ্যাকাথন ‘স্পেস অ্যাপস নেক্সট জেন’ আয়োজনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের শিশু-কিশোর-তরুণদের মধ্যে পরিচিতি পায় বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম (বিআইএফ)।

২০১৬ সালে যাত্রা শুরু করে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিআইএফ। রাজধানীর বুকে যাত্রা শুরু হলেও বর্তমানে দেশের ২৫৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছড়িয়ে আছে তাদের স্বেচ্ছাসেবীরা। আর শ দুয়েক মাঠপর্যায়ের দক্ষ মেন্টর ও প্রায় ৫০ হাজারের স্বেচ্ছাসেবক দল তো আছেই।

দেশের প্রতিটি প্রান্তে বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, মহাকাশ, রোবটিকসসহ ডিজিটাল দুনিয়ার নানা আয়োজন নিয়ে ছুটে গেছে বিআইএফ। তাদের কাজের পরিধি দেখে পাশে দাঁড়িয়েছে সরকারি মন্ত্রণালয়ও। বিআইএফ কাজ করেছে বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগের সহযোগী হিসেবে তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক আয়োজন ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড’–এর ইনোভেশন জোন পরিচালনা করতে।

বিজ্ঞাপন

২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘সেকেন্ড মিউজ’–এর সহযোগিতায় বিআইএফ আয়োজন করে স্পেস অ্যাপস নেক্সট জেন নামের ৩৬ ঘণ্টার হ্যাকাথন। স্কুল-কলেজপড়ুয়া কয়েক হাজার শিক্ষার্থীর আবেদনের ভিত্তিতে বাছাইকৃত ৫০টি দল অংশ নেয় হ্যাকাথনের চূড়ান্ত পর্বে। তথ্য ও প্রযুক্তির সমন্বয়ে দেশের বিভিন্ন সমস্যার ফলপ্রসূ সমাধান খুঁজে বের করতে শিশু-কিশোরদের উদ্বুদ্ধ করে তোলাই ছিল এই হ্যাকাথনের মূল লক্ষ্য।

তরুণদের মধ্যেও একই বার্তা ছড়িয়ে দিতে কাজ করেছে বিআইএফ। দৈনন্দিন সমস্যায় প্রযুক্তি ব্যবহার করে উদ্ভাবনী সমাধান তৈরিতে তরুণদের জন্য তারা আয়োজন করে ইনোভেশন ক্যাম্প। বিভিন্ন প্রকল্পের পরিকল্পনা তৈরি, সেগুলোর প্রোটোটাইপ বানানোর পাশাপাশি ব্যবসায়িক মডেল, বাজারজাত ও অর্থায়নের নানা দিক নিয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় এই ক্যাম্পে।

বিগ ডেটা অ্যানালাইসিস, আইওটি ও মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট নিয়ে তরুণদের ক্যারিয়ার গাইডলাইন দেওয়ার নানা উদ্যোগ নেয় বিআইএফ। দেশের প্রথম আইওটি কনফারেন্সে রোবটিকস, অগমেন্টেড অ্যান্ড ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটি, আইওটিসহ তথ্যপ্রযুক্তিতে ক্যারিয়ার গঠন নিয়ে সেমিনার ও কর্মশালার আয়োজন করে তারা।

default-image

ফ্রিল্যান্সিং জগতে বাংলাদেশের তরুণদের দক্ষতার আরেক পরিচয় মেলে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে। তবে নিজেদের প্রতিষ্ঠানেই এমন কাজের দিকনির্দেশনা দিতে বিআইএফ আয়োজন করে ডিজিটাল মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজি ফর বিজনেস। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে কীভাবে একজন তরুণ দেশের মাটিতে বসেই আন্তর্জাতিক মানের প্রতিষ্ঠান তৈরি করার উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারেন, তারই নানা অংশ নিয়ে ছিল এই আয়োজন।

ভবিষ্যতের মুদ্রা হচ্ছে ডেটা বা তথ্য। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ব্যবসা, বিজ্ঞান, গবেষণা, সমাজব্যবস্থা, চিকিৎসা, রাজনীতি, মহাকাশ—সবখানেই গুরুত্ব বাড়ছে ডেটার। সারা দুনিয়ায় এমন বিপুল পরিমাণ ডেটা তৈরি হলেও সেগুলো বিশ্লেষণের মাধ্যমে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার মানুষের বেশ অভাব। বাংলাদেশের তরুণদের সেই উদ্ভাবনী খাতে এগিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিতে বিআইএফ আয়োজন করে ডেটা সায়েন্স সেমিনার। ডেটা ইঞ্জিনিয়ার, ডেটা সায়েন্টিস্ট, স্ট্যাটিসটিশিয়ান, ডেটা অ্যানালিস্টসহ আরও নানা পেশার অভিজ্ঞ মানুষ এই সেমিনারে অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন

‘আজকের উদ্ভাবন, আগামীর সম্ভাবনা’—এমন বিশ্বাসে কাজ করে চলেছে বিআইএফ। তাই তরুণদের সঙ্গে সঙ্গে শিশুদের জন্যও রোবটিকস নিয়ে তারা আয়োজন করে ‘নিজের হাতে রোবট বানাই’ কর্মশালা। যেখানে শিশু-কিশোরেরা বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে রোবট বানানোর চেষ্টা করে।

আজকের তরুণ আর আগামীর শিশু-কিশোর সবাইকে নিয়ে অদম্য এক বাংলাদেশ গড়ে তোলার স্বপ্ন দেখে বাংলাদেশ ইনোভেশন। আর সে পথে বাংলাদেশের আগামী প্রজন্মকে এগিয়ে নিয়ে যেতে আরও নানা কাজে সবার সঙ্গে এগিয়ে যেতে চায় বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম।

বিজ্ঞান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন