বিজ্ঞাপন

তবে বাস্তবতা এটাই। জনপ্রিয় চরিত্র মিস্টার বিন চরিত্রে রূপদানকারী রোয়ান অ্যাটকিনসনের বায়োপিক আসতে যাচ্ছে রুপালি পর্দায়। আত্মজীবনীমূলক এই ছবিতে ৬৬ বছর আগের সেই ফুটেজগুলো ব্যবহার করা হবে। মিস্টার বিন মানেই হাসি চেপে রাখা দায়। কিন্তু বাস্তবের ‘মিস্টার বিন’ মানে রোয়ান অ্যাটকিনসন খুবই গম্ভীর একজন মানুষ। বেশি কথা বলা তাঁর পছন্দ নয়। মিস্টার বিন হয়ে ওঠা তাঁর জন্য খুবই বিরক্তিকর একটা অভিজ্ঞতা ছিল। ১৯৯০ সালে প্রথম তিনি এই চরিত্রে ছোট পর্দায় আসেন। এই শো প্রথম প্রচারিত হয় ১৯৯০ সালের জানুয়ারি থেকে ১৯৯৫ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। চরিত্রটিতে অভিনয়ের সময় রোয়ান কেবলই ভাবতেন, ‘কবে শেষ হবে এই যন্ত্রণা?’

default-image

যুক্তরাজ্যের নিউক্যাসল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তড়িৎ প্রকৌশলে পড়াশোনা শেষ করে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে দ্য কুইনস কলেজ থেকে একই বিষয়ে পিএইচডি করেন রোয়ান অ্যাটকিনসন। তাঁর জীবনের নানা অজানা অধ্যায় উঠে আসবে এই সিনেমায়।

default-image

বিষয়টি নিশ্চিত করে তাঁর কাছের বন্ধু মাইকেল ফেন্টন স্টিভেনস বলেন, ‘ক্যারিয়ারের একেবারে শুরু থেকেই রোয়ান সবকিছু ভিডিও করে রেখেছে। সেগুলোতে কোনো কথা নেই। এ রকম অসংখ্য ফুটেজ আছে তার কাছে। সেগুলো এবার কাজে লাগবে। তার জীবন নিয়ে সিনেমা তৈরির প্রস্তুতি চলছে।’ এসশোবিজ, দ্য মিরর, মাই লন্ডন, ভিআইপিসহ একাধিক গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, ছবিটি হবে নির্বাক।

default-image
বিনোদন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন