default-image

সাহায্য নয়, কাজের পাওনা টাকা চান চলচ্চিত্রের নৃত্য পরিচালক হাবিব রহমান। করোনাভাইরাসের উপদ্রবে কাজ বন্ধ হয়ে গেছে, আয়ও বন্ধ। পরিবার নিয়ে দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে তাঁদের। এ সময়ে পারিশ্রমিকের পাওনা টাকাগুলো পেলে খেয়ে-পরে বাঁচতে পারবেন তাঁরা।

হাবিব রহমান বলেন, ‘আমি সাহায্য চাইছি না। ছোট মানুষ হিসেবে কাজের পারিশ্রমিক হিসেবে বিভিন্ন প্রযোজকের কাছে লক্ষাধিক টাকা পারিশ্রমিক পাব, সেটাই চাইছি। আমার পিঠ এখন দেয়ালে ঠেকে গেছে। টাকাগুলো পেলে আরও ছয় মাস পরিবার নিয়ে চলতে পারব।’

প্রযোজকদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও পারিশ্রমিকের অর্থ পাচ্ছেন না বলে জানান ঢালিউডের প্রায় চার শতাধিক ছবির এই নৃত্য পরিচালক। টাকা চাইতে গিয়ে উল্টো প্রযোজকদের কাছে তিরস্কৃত হচ্ছেন তিনি। সেই ক্ষোভ থেকে কয়েক দিন আগে দেনাদার প্রযোজকদের নাম উল্লেখ করে ফেসবুকে পেজে স্ট্যাটাস দিয়েছেন হাবিব রহমান। তিনি লিখেছেন, চলচ্চিত্রে দুই-একজন গণ্যমান্য ব্যক্তি আছেন, তাঁরা ফেসবুকে বড় বড় কথা বলেন, কিন্তু টেকনিশিয়ানদের কাজ করিয়ে টাকা দেন না। আরও এক পোস্টে তিনি লিখেছেন, যারা টেকনিশিয়ানদের টাকা মেরে বড়লোক হয়েছেন, মাঝে মাঝে মনে হয়, ফেসবুকে তাঁদের মুখোশটা খুলে ব্যান্ড বাজিয়ে দিই।

default-image

এ ব্যাপারে হাবিব বলেন, ‘খুব দুঃখে কথাগুলো লিখেছি। সবাই না, কিছু কিছু প্রযোজকের ব্যবহার খুবই খারাপ। মাসের পর মাস কাজের পারিশ্রমিক আটকে রেখেছেন তাঁরা। চাইতে গেলে বলে “তুমি যে কাজ করেছ, তার প্রমাণ আছে”? বলুন তো, এটি কোনো কথা?’ তিনি আরও বলেন, ‘শুধু তাই না, কেউ যদি টাকা দিতেও চান, সে ক্ষেত্রেও ছলচাতুরী করে আজ দিচ্ছি, কাল দিচ্ছি বলে মাসের পর মাস ঘোরান। আবার ছবির ব্যবসা খারাপ গেলেও প্রযোজক পাওনা টাকা দিতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন। হাত-পা ধরেও সেই টাকা তুলতে কষ্ট হয়ে যায়। ছবির ব্যবসার সঙ্গে নৃত্যপরিচালকদের পারিশ্রমিকের সম্পর্ক কী? কাজ বন্ধ, আয়ও বন্ধ। পরিবার নিয়ে আমি ভালো নেই। সামনে আর কত দিন এই অবস্থা চলবে জানি না। পাওনা টাকা পেলে সামনের দিনগুলি পার করতে পারব।’

default-image

কত জনের কাছে পারিশ্রমিকের টাকা পাবেন? জানতে চাইলে প্রযোজকদের নাম বলতে চাননি হাবিব। তিনি বলেন, ‘তাঁদের নাম বলতে চাই না। এখনকার সময়ের ৫-৬ জন প্রযোজকের কাছে পাই। পুরোনো প্রযোজকদের কাছেও কিছু কিছু পাব, তবে তাঁরা এখনকার প্রযোজকদের মতো ছেঁচড়া না। আমার জানা মতে এই সব প্রযোজকদের কাছে কমপক্ষে ৫০ জন টেকনিশিয়ান টাকা পাবেন।’

নৃত্যপরিচালক সমিতি আছে, প্রযোজক সমিতি আছে, সেখানে অভিযোগ করছেন না কেন? হাবিব বলেন, ‘দুই সমিতিতেই অভিযোগ করব। দু-একজন প্রযোজক নেতার সঙ্গে কথাও হয়েছে। তারপরও দেখি, আর কিছুদিন অপেক্ষা করি। দেখি তাঁদের বিবেক বুদ্ধি হয় কি না।

সাম্প্রতিক ‘বীর’, ‘আকবর’, ‘ক্যাসিনো’, ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু’, ‘দিন: দ্য ডে’ ছবির গানের নৃত্যপরিচালনা করেছেন হাবিব রহমান। এ ছাড়া বহু ছবির নৃত্যপরিচালনা করেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0