বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এ প্রসঙ্গে জ্যাকুলিন আরও বলেছেন, ‘একটু লম্বা ছুটি পেলে নতুন কোনো নাচের স্টেপ শিখি। আবার কখনো ব্যায়াম বা যোগের নতুন কিছু শেখার চেষ্টা করি। এমন কিছু করি, যা মানসিকভাবে আমাকে ভালো রাখে। সিনেমা দেখতে আর বই পড়তেও ভালোবাসি। তবে ইদানীং বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্রের সঙ্গে সময় কাটাতে দারুণ লাগছে। তাই পিয়ানো বাজানো শিখছি। এই সবই আমাকে সক্রিয় রাখে। আমার শিল্পীসত্তাকে সমৃদ্ধ করে। সবচেয়ে বড় কথা, এসবের মাধ্যমে অনেক রিলাক্স থাকি। আমার বাড়িতে বেশ কটি বিড়াল আছে। এদের সঙ্গে সময় কাটাতেও আমি ভালোবাসি। আর আমার বিড়ালদের নানা মুহূর্তের ছবি আমি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করি।’

করোনাকালের মধ্যেও একের পর এক ছবির শুটিং চালিয়ে গেছেন জ্যাকুলিন। ভূত পুলিশ ছবিতে তাঁকে শেষ পর্দায় দেখা গেছে। এই ছবিতে তাঁর সঙ্গে আছেন সাইফ আলী খান, অর্জুন কাপুর ও ইয়ামি গৌতম। এ ছাড়া জ্যাকুলিনের হাতে এখন একাধিক প্রকল্প আছে। অক্ষয় কুমারের সঙ্গে রাম সেতু আর বচ্চন পান্ডে, সালমান খানের সঙ্গে কিক টু। এদিকে রণবীর সিং অভিনীত সার্কাস ছবিতে অভিনয় করছেন জ্যাকুলিন। এই ছবির অপর নায়িকা পূজা হেগড়ে।

default-image

এত সব ব্যস্ততার মধ্যে নানা সমাজসেবামূলক কাজও চালিয়ে যাচ্ছেন জ্যাকুলিন। এই বলিউড অভিনেত্রীর তাই দম ফেলার সুযোগ নেই।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন