default-image

২০০ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় মূল অভিযুক্ত সুকেশ চন্দ্রশেখর। মামলার তদন্ত করছে ভারতের অর্থনৈতিক আইনকানুন প্রয়োগ ও আর্থিক অপরাধ দমনসংক্রান্ত সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ আর সুকেশ চন্দ্রশেখরের মধ্যে যোগাযোগ সামনে আসতেই ইডির জেরার মুখে পরে অভিনেত্রী। তারপর থেকে একাধিকবার ইডির অফিসে হাজিরা দিয়েছেন তিনি। তবে এখনো সেই মামলায় ক্লিনচিট মেলেনি। গত বছর ডিসেম্বরে দুবাই যাওয়ার পথে মুম্বাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জ্যাকুলিনকে আটকায় ইডি। সে সময় তাঁর নামে লুক আউট নোটিশ জারি হয়। নিয়ম অনুযায়ী তদন্তকারী সংস্থার অনুমতি ছাড়া দেশ ছাড়তে পারবেন না তিনি।

default-image

শুরুতে তাঁর সঙ্গে সম্পর্কের প্রশ্নে অস্বীকার করলেও পরে তাঁর সঙ্গে বন্ধুত্বের কথা স্বীকার করে নেন শ্রীলঙ্কান বংশোদ্ভূত জ্যাকুলিন। সুকেশ থেকে প্রাপ্ত উপহারের তালিকাও প্রকাশ করেন জ্যাকুলিন। তিনি জানান, গুচি আর শ্যানেল থেকে তিনটি ডিজাইনার ব্যাগ, গুচির দুটো পোশাক, লুই ভিত্যোঁর জুতা আর দুটো হিরের কানের দুল নিয়েছেন। সুকেশ একটি মিনি কুপারও পাঠিয়েছিলেন কিন্তু তা তিনি নেননি।

ইডির দাবি, ২০০ কোটি টাকা চুরির পরেই জ্যাকুলিনকে তার থেকে ৫.৭১ কোটি টাকার উপহার দিয়েছিলেন সুকেশ। তা ছাড়া জ্যাকুলিনের পরিবারের জন্য ১ লাখ ৭৩ হাজার মার্কিন ডলার খরচ করেছেন সুকেশ। এ ছাড়া দামি গাড়ি, ৯ লাখ টাকার পার্সি বিড়াল, ৫২ লাখ টাকার ঘোড়া, দামি পাথরের গয়নাও জ্যাকুলিনকে উপহার দিয়েছিলেন সুকেশ।

default-image

গত মাসে প্রায় সাড়ে ৭ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি। ইডির সূত্রে, সেসব অবৈধ সম্পত্তি। এই সম্পদের অর্থ বেআইনি পথে উপার্জন করেছেন সুকেশ। তাই সেসব সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন