কঙ্গনা রনৌত
কঙ্গনা রনৌত কোলাজ: আমিনুল ইসলাম

কাশ্মীরের রানি দিদাকে বলা হতো ‘ক্লিওপেট্রা অব কাশ্মীর’। দশম থেকে একাদশ শতাব্দীর পাঁচ দশক কাশ্মীর শাসন করেন তিনি। দ্বাদশ শতকের লেখক কালহানা রচিত কাশ্মীরের ওপর ঐতিহাসিক বই ‘রজতরঙ্গিনী’তেও দিদার উল্লেখ আছে। এই রানির ওপর দীর্ঘদিন গবেষণার পর আশীষ কাউল লিখেছেন দিদা: কাশ্মীর কি যোদ্ধা রানি নামের একটি বই। লেখকের অনুমতি না নিয়েই সেই বই অবলম্বনে সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দিয়ে বিতর্কে আবারও নাম লেখালেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌত।

default-image

আশীষ কাউল তাঁর এই বইয়ের মুখবন্ধ লেখার অনুরোধ করে বইটির সফট কপি পাঠান বলিউড তারকা কঙ্গনা রনৌতকে। এদিকে চার মাস ধরে কঙ্গনা তার কোনো জবাব দেননি। এবার হঠাৎ করেই তিনি তাঁর পরের ছবি মণিকর্ণিকা রিটার্নস: দ্য লিজেন্ড অব দিদা নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন। এটি তাঁর পরিচালিত ও অভিনীত মণিকর্ণিকা: দ্য কুইন অব ঝাঁসি সিনেমার সিক্যুয়েল। এই ঘোষণায় তৈরি হয়েছে বিতর্ক। বইয়ের লেখক আশীষ কাউলের দাবি, তিনি ছবি নির্মাণের বিষয়ে কিছুই জানেন না।

default-image
বিজ্ঞাপন

আশীষ কাউল জানান, ২০১৮ সালে তিনি রূপা পাবলিকেশনের সঙ্গে বইটি লেখার ব্যাপারে চুক্তিবদ্ধ হন। ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে তিনি কঙ্গনাকে এই বইয়ের হিন্দি সংস্করণের মুখবন্ধ লেখার অনুরোধ করে মেইল করেন। আশীষ ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বলেন, ‘কঙ্গনা তাঁর নতুন সিনেমার ঘোষণায় দিদা সম্পর্কে যা বললেন, এসবই আমার বইয়ের অংশ। আমার নতুন বইয়ের ভূমিকা লেখার জন্য বইয়ের একটি কপি পাঠিয়েছিলাম। আমি এ–ও বলেছিলাম যে তিনি বইটি নিয়ে ভবিষ্যতে সিনেমাও বানাতে পারেন। এদিকে তিনি আমার মেইলের কোনো জবাব দেননি। আমার কোনো মৌখিক বা লিখিত অনুমতি নেননি। আর সিনেমা বানানোর ঘোষণা দিয়ে দিলেন। আমার ছয় বছরের গবেষণার কোনো স্বীকৃতিই দিলেন না তিনি। পানির মতো পরিষ্কার যে তিনি আমার গবেষণা চুরি করেছেন। দিদাকে নিয়ে এর আগে কোনো ইতিহাসবিদ এত বিস্তারিত লেখেননি। আমি আমার কপিরাইটের জন্য আইনি ব্যবস্থা নেব। যা যা করতে হয়, করব। আমি এর শেষ দেখে ছাড়ব।’

default-image

যদিও কঙ্গনা এই চুরির অভিযোগ নিয়ে এখনো টুঁ শব্দটি করেননি। ২০২২ সালে মণিকর্ণিকা রিটার্নস: দ্য লিজেন্ড অব দিদা সিনেমার শুটিং শুরু হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন কঙ্গনা।

default-image
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন