বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

৭ অক্টোবর: অভিযুক্ত ব্যক্তিদের এনসিবির হেফাজতে রাখার আবেদন নাকচ করল মুম্বাই ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। আরিয়ান খানসহ পুরুষ অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে আর্থার রোডের জেলে প্রেরণ।
৮ অক্টোবর: মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আরিয়ান খানের জামিন আবেদন নাকচ।
১১ অক্টোবর: মুম্বাইয়ের বিশেষ আদালতে আরিয়ানের আইনজীবীর জামিন আবেদন। বিশেষ আদালত জামিন শুনানির তারিখ নির্ধারণ করে ১৪ অক্টোবর।
১৪ অক্টোবর: শুনানি পিছিয়ে ২০ অক্টোবর তারিখ নির্ধারণ।

default-image

২০ অক্টোবর: মুম্বাইয়ের বিশেষ আদালতে আরিয়ান খানের জামিন বাতিল। পরে আরিয়ানের আইনজীবী মুম্বাইয়ের উচ্চ আদালতে যান। জামিন শুনানির তারিখ ধার্য হয় ২৬ অক্টোবর।
২১ অক্টোবর: শাহরুখ খান আর্থার রোডের জেলে আরিয়ান খানের সঙ্গে দেখা করেন। শাহরুখের বাড়িতে এনসিবির কর্মকর্তা।
২৬–২৭ অক্টোবর: মুম্বাইয়ের উচ্চ আদালতে জামিন আবেদন শুনানি শুরু। সন্ধ্যা হয়ে যাওয়ায় পরের দিনও চলে শুনানি। আরিয়ানের জন্য নতুন আইনজীবী নিযুক্ত হন সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল মুকুল রোহতগি। তাঁকে সহায়তা করেন সতীশ মানশিন্ডে ও অমিত দেশাই।

২৮ অক্টোবর: আরিয়ান খানসহ তাঁর বন্ধু আরবাজ মার্চেন্ট ও মুনমুন ধমেচার জামিন।

default-image

২৯ অক্টোবর: কথা ছিল, আজকে সব ধরনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে জেল থেকে ছাড়া পাবেন। তবে আর্থার রোডের জেল কর্তৃপক্ষ বলছে, আজকে ছাড়া পাবেন না আরিয়ান। কাল সকালে জেল থেকে বের হবেন তিনি। শনিবার সকাল ছয়টায় ফের খুলবে আর্থার রোড জেলের জমানত বক্স। এরপর শনিবার সকাল ১০টায় আরিয়ানের জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হবে। ভারতের কারাগারের নিয়ম অনুযায়ী বিকেল সাড়ে পাঁচটার পর কোনো অভিযুক্তের জামিনের কাগজ গ্রহণ করে না তারা। কারণ, সূর্যাস্তের পর বন্দীদের মুক্তি দেওয়ার নিয়ম নেই। আজ শুক্রবার দুপুরে পর জানানো হয় আরিয়ানের জামিনের শর্ত। জামিন শর্ত পূরণ করতে সব রকম ব্যবস্থা আগেভাগেই সাজিয়ে রেখেছিলেন আরিয়ানের আইনজীবীরা। তৈরি ছিল মুচলেকার শর্ত নগদ এক লাখ টাকা। জামিনদার হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলেন আরিয়ানের বাবা শাহরুখের সহ–অভিনেত্রী জুহি চাওলা।

default-image

৩০ অক্টোবর: আজ শনিবার মুম্বাই স্থানীয় সময় সকাল নয়টা নাগাদ মাদক-কাণ্ড মামলায় আরিয়ানসহ বাকি অভিযুক্ত ব্যক্তিদের জামিনসংক্রান্ত আইনি কাগজপত্র জমা পড়ে আর্থার রোড জেলে। ঘড়ির কাঁটা ধরে সাড়ে নয়টা থেকে জেলে শাহরুখপুত্রসহ বাকিদের ছাড়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়। আরিয়ান যখন জেল থেকে বের হন, তখন ঘড়ির কাঁটায় সকাল ১০টা বেজে ৫৫ মিনিট। বেলা ১১টা ২০ মিনিটে তিনি মান্নতে মা–বাবার কাছে যান।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন