সোনাক্ষী সিনহা

১১ বছরের বেশি বলিউডে কাটিয়ে ফেললেন অভিনেত্রী সোনাক্ষী সিনহা। ২০১০ সালে সালমান খানের সঙ্গে ‘দাবাং’ ছবি দিয়ে তাঁর বিটাউনে অভিষেক হয়েছিল। নিজের এ ১১ বছর ফিল্মি ভ্রমণ নিয়ে বেশ খুশি শত্রুঘ্ন সিনহাকন্যা সোনাক্ষী। তবে চরিত্র বাছাইয়ের ক্ষেত্রে এখন বেশ বাছবিচার করছেন এ বলিউডকন্যা।
সম্প্রতি সোনাক্ষী জানিয়েছেন, তিনি কী ধরনের চরিত্রে আগামী দিনে অভিনয় করতে চান। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি আর এমন ধরনের চরিত্রে অভিনয় করব না, যা প্রভাবশালী নয়, শুধু গ্ল্যামারনির্ভর। চরিত্রটি ছবিতে জোরদার আর গুরুত্বপূর্ণ হলেই আমি কাজ করব। আর একটা দিকও আমি মাথায় রাখব, একই ধরনের চরিত্রে বারবার অভিনয় নয়।’

সোনাক্ষী সিনহা

এ তারকাকন্যা আরও বলেন, ‘আমি মনে করি একজন অভিনেত্রী হিসেবে আমাদের নানা ধরনের চরিত্রের স্বাদ নেওয়া উচিত। ভবিষ্যতে আমি যদি কোনো সিরিয়াল খুনির চরিত্রে অভিনয় করার সুযোগ পাই, তখনো নিশ্চয়ই করব। আর আমি আমার অভিনীত প্রতিটি চরিত্রের প্রতি আত্মবিশ্বাসী থাকতে চাই। চরিত্রের প্রতি ন্যায় আচরণ করতে চাই।’

সোনাক্ষী সিনহা

সোনাক্ষীর বলিউডে অভিষেক হয়েছিল ‘কমার্শিয়াল’ নায়িকা হিসেবে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘আমি মনে করি সবকিছুর জন্য সঠিক সময় আছে। আমি শুরুর দিকে অতটা ভাবনাচিন্তা করিনি। তখন আমি কমার্শিয়াল ছবি করতে চেয়েছিলাম। তবে ওই সময় আমি ‘লুটেরা’ এর মতো ছবিতেও কাজ করেছি। তবে ক্যারিয়ারের এ সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে আমি কিছু নির্দিষ্ট ধরনের ছবিতে কাজ করতে চাইব।’

সোনাক্ষী সিনহা
ছবি: সংগৃহীত

সোনাক্ষী আরও বলেছেন, ‘ক্যারিয়ারের শুরু থেকে দর্শক কখনো আমার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেননি। আর আমাকে নির্দিষ্ট কিছু চরিত্রে কল্পনা করতে তাঁদের কোনো অসুবিধা হয়নি।’
সোনাক্ষীকে ভবিষ্যতে ‘ডবল একসেল’ ছবিতে দেখা যাবে। এ ছবির প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘আমি অতীতে কিছু শক্তিশালী চরিত্রে অভিনয় করেছি বলে আজ ডবল একসেল-এর মতো ছবিতে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। আমি কৃতজ্ঞ যে ‘দাবাং’-এর মতো ছবির মাধ্যমে আমার অভিষেক হয়েছে। আর সেখান থেকেই আমি শক্তি, আত্মবিশ্বাস, সাহস আর প্রেরণা পেয়েছি।’

সোনাক্ষী সিনহা