বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ইয়ামি বলেন, ‘প্রযোজকেরা এখনো শুধু বড় তারকাদের পর্দায় আনতে বেশি আগ্রহী। তাঁরা গল্পভিত্তিক ছবিকে খুব একটা গুরুত্ব দেন না। আর এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় উদাহরণ হলো আমার স্বামী আদিত্য (ধর)। উরি ছবি পরিচালনার তিন বছর পার করে ফেলেছে সে। এখনো আদিত্য তার সবচেয়ে পছন্দের এক প্রকল্প নিয়ে অপেক্ষা করছে। প্রযোজকদের কাছে সে নিজের দৃষ্টিভঙ্গি ব্যাখ্যা করে যাচ্ছে। মাত্র দু-তিনজন প্রযোজক আছেন, যাঁরা তার দৃষ্টিভঙ্গি বুঝতে পেরেছেন। আর কাজ করতে আগ্রহী হয়েছেন।’

default-image

এই বলিউড নায়িকার কথায়, ‘আমার মনে হয় পরিচালকেরা যাতে তাঁদের চিন্তাভাবনা অবাধভাবে মেলে ধরতে পারেন, তার জন্য তাঁদের সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া উচিত। গল্প আর চিত্রনাট্যের প্রতি আমাদের বেশি জোর দিতে হবে। বাহুবলী, পুষ্পা, কেজিএফ, আরআরআর—এই ছবিগুলো প্রমাণ করে প্রযোজকেরা তাঁদের পরিচালক আর গল্পের ওপর আস্থা রেখেছিলেন। আর এসব ছবিতে যে অভিনেতারা আছেন, তাঁরা অনেক বড় তারকা, বিশেষ করে দক্ষিণি ছবির জগতে। আর তাঁদের বিপুলসংখ্যক প্যান ইন্ডিয়া দর্শক আছেন। আমার মনে হয়, তাঁদের আটকানো মুশকিল।’
ইয়ামিকে শেষ পর্দায় দেখা গেছে দশবি ছবিতে। নেটফ্লিক্সে এই ছবি মুক্তি পেয়েছিল। ইয়ামি ছাড়া এই ছবিতে আছেন অভিষেক বচ্চন, নিমরত কৌর।

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন