বিজ্ঞাপন
default-image

এই ছবিতে ‘সন্ধ্যা’ হয়ে ওঠার জন্য অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে ভূমিকে। নিজের প্রশিক্ষণ নিয়ে এই বলিউড নায়িকা বলেন, ‘সন্ধ্যা চরিত্রের জন্য সীমাজি আমাকে ট্রেনিং দিয়েছিলেন। সীমাজির সঙ্গে প্রথম দেখা হতেই উনি বলেন, “কাল থেকে সালোয়ার কামিজ পরে আসবে।” আমি যথারীতি সালোয়ার কামিজ পরে ওনার বাড়িতে হাজির হই। সীমাজির বাড়িতে পা রাখামাত্রই উনি আমাকে ঝাড়ু-মোছা করতে বলেন। চা বানাতে বলেন। এভাবে এক মাস ধরে আমি ওনার বাড়ির ঝাড়ু দেওয়ার কাজ করি। আর এই এক মাসে আমি জীবনকে অন্যভাবে অনুভব করি। আমি আসল জীবনের স্বাদ নিই। এত দিন আমি এক অন্য দুনিয়ায় বাস করতাম। তাই এই জীবনও অনুভব করা খুব জরুরি ছিল। ওনার জন্যই আমি সেই সুযোগ পেয়েছি।’

ভূমি আরও বলেন, ‘সীমা পাহওয়া এক দুর্দান্ত অভিনেত্রী। উনি এই ছবিতে আমার মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। আমি, আয়ুষ্মান, আর সীমাজি একসঙ্গে একাধিক ছবিতে কাজ করেছি। আমরা “পবিত্র ত্রিমূর্তি”র মতো। আমরা এই ত্রয়ী যে ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছি, সেই ছবিই দারুণভাবে সফল। আজ পর্যন্ত ভাগ্য আমাদের সঙ্গ দিয়েছে।’

ভূমি সেরা চমক দিয়েছিলেন তাঁর অভিষেক ছবি ‘দম লাগা কে হাইসা’তে। এই ছবিতে তাকে অত্যন্ত স্থূলকায় এক নারীর চরিত্রে দেখা যায়। তবে কোনো ‘প্রস্থেটিক মেকআপ’ নয়। শুধু ডায়েট করে নিজের ওজন বাড়িয়েছিলেন এই বলিউড নায়িকা।
default-image

বিটাউন সাম্রাজ্যে নিজের জমি শক্তপোক্ত করে নিয়েছেন ভূমি পেড়নেকর। সব ছবিতেই তাঁকে দেখা যায় ব্যতিক্রমী সব চরিত্রে। নেটফ্লিক্সে সম্প্রতি মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ডলি কিট্টি অউর ঔর চমকতে সিতারে’ ছবিতে কাজ করে আবার সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি। এই ছবিতে তাঁর সঙ্গে আছেন কঙ্কণা সেন শর্মার মতো দাপুটে বাঙালি অভিনেত্রী। এই দুই অভিনেত্রীর যুগলবন্দী সবার দারুণ প্রশংসা কুড়িয়েছে। তবে ভূমি সেরা চমক দিয়েছিলেন তাঁর অভিষেক ছবি ‘দম লাগা কে হাইসা’তে। এই ছবিতে তাকে অত্যন্ত স্থূলকায় এক নারীর চরিত্রে দেখা যায়। তবে কোনো ‘প্রস্থেটিক মেকআপ’ নয়। শুধু ডায়েট করে নিজের ওজন বাড়িয়েছিলেন এই বলিউড নায়িকা। আবার ভূমির স্মৃতিতে ফিরে এল তার এই অভিষেক ছবিকে ঘিরে কিছু কথা।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন