বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

তিনি এই চিঠিতে বলেছেন, ‘জ্যাকুলিনের সঙ্গে আমার সম্পর্ক ছিল বলেই তাঁকে নানান উপহার দিয়েছি। ওর আর আমার মধ্যে যে লেনদেন হয়েছে, তার সঙ্গে এই মামলার কোনো সংযোগ নেই। তাই এই মামলার সঙ্গে জ্যাকুলিনের কোনো সম্পর্ক নেই।’ সুকেশ তাঁর লেখা চিঠিতে তাঁকে প্রতারক বলার জন্য প্রবল আপত্তি জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমি প্রতারক নই। আমার থেকে যেসব জেল কর্মকর্তারা টাকা নিয়েছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো তদন্ত করা হচ্ছে না। আমি যেহেতু এখনো দোষী সাব্যস্ত হইনি, তাই আমার গায়ে “ধোকাবাজ”, “প্রতারক”—এসব তকমা লাগিয়ে দেওয়া ঠিক হচ্ছে না।’

default-image

এ মামলার সঙ্গে জ্যাকুলিনের নাম ভালোভাবে জড়িয়ে গেছে। ভারতের অর্থনৈতিক আইনকানুন প্রয়োগ ও আর্থিক অপরাধ দমনসংক্রান্ত সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) এই বলিউড তারকাকে অর্থ প্রতারণার মামলার বিষয়ে একাধিকবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।

default-image

এমনকি এই মামলার কারণে জ্যাকুলিনকে ইডি দেশের বাইরে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি। জ্যাকুলিনকে সুকেশ যেসব উপহার দিয়েছেন, তা ইডি জব্দ করার প্রক্রিয়ায় ব্যস্ত। সুকেশের সঙ্গে আরও অনেক বলিউড তারকার সম্পর্কের কথা উঠে এসেছে। এই তালিকায় নোরা ফতেহি, শ্রদ্ধা কাপুর, শিল্পা শেঠি, হরমন বাওয়েজার নাম আছে।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন