ক্যাটরিনা কাইফ ও রণবীর কাপুর।
ক্যাটরিনা কাইফ ও রণবীর কাপুর।ছবি:ইনস্টাগ্রাম

সিনেমার নাম আবার ‘লুডো’ হয়? উত্তর হলো, হয়। অবশেষে নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেতে চলেছে অনুরাগ বসু পরিচালিত বহু প্রতীক্ষিত ছবি ‘লুডো’। পুরোদমে চলছে ছবির প্রচারণা। বারবার ‘গ্যাংস্টার’, ‘লাইফ ইন আ মেট্রো’, ‘বরফি’খ্যাত এই পরিচালককে একটা কমন প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। ছবির নাম ‘লুডো’ কেন? সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে এ প্রশ্নের মজাদার জবাব দেন অনুরাগ।

default-image

অনুরাগ বসুর ‘লুডো’ সিনেমাকে ঘিরে উত্তেজনা ক্রমে বাড়ছে। বারবার চর্চায় উঠে আসছে ছবির নাম। এবার এই নামের তাৎপর্য খোলাসা করেছেন স্বয়ং পরিচালক। তিনি বলেছেন, ‘লুডো’ নামের সঙ্গে রণবীর কাপুর ও ক্যাটরিনা কাইফের সম্পর্ক আছে।

বিজ্ঞাপন

‘জগ্গা জাসুস’ ছবির সেটে রণবীর আর ক্যাটরিনাসহ বাকিরা ‘লুডো’ খেলায় ব্যস্ত থাকতেন। আর তখনই অনুরাগ ছবির নাম ‘লুডো’ রাখার জন্য অনুপ্রাণিত হন। ছবির নামের প্রসঙ্গে অনুরাগ বলেন, ‘“জগ্গা জাসুস” সিনেমার শুটিংয়ের সময় আমাদের লুডো খেলার নেশা পেয়ে বসেছিল।

default-image

শুটিংয়ের ফাঁকতালে আমরা লুডো খেলতে শুরু করে দিতাম। বিশেষ করে রণবীর ও ক্যাটরিনা একটু অবসর পেলেই লুডো খেলতে বসে যেত। আর সবার এই খেলার এতটাই নেশা লেগে যায় যে একটি লোকেশন থেকে অন্য লোকেশনে যাওয়ার পথেও তারা লুডো খেলত। সফলকালীন লুডো খেলার বিষয়টি আমার মাথায় ছিল। আমার এ ছবি চারটি কাহিনির আলাদা আলাদা সফর। তবে সবার সফর শেষে একসঙ্গে মিলে যায়। তাই “লুডো” নামটি আমার ছবির জন্য একদম উপযুক্ত। কারণ, লুডো খেলায়ও তো চারজন থাকে। আর সবার সফর একটা জায়গায় গিয়ে শেষ হয়।’

default-image


অনুরাগ আরও বলেন, ‘“জগ্গা জাসুস” ছবির পর আমার কাছে চার-পাঁচটা সিনেমার চিত্রনাট্য ছিল। তবে আমার স্ত্রী এই ছবি করার জন্য বেশি করে জোর দিচ্ছিলেন। “লুডো” সিনেমাটি দর্শকদের বলবে যে জীবনের চলার পথে কোনো মানুষের সঙ্গে আমাদের অকারণে সাক্ষাৎ হয় না। কোনো কারণবশত সে আমাদের জীবনে আসে।’ ‘লুডো’ ছবিতে অভিষেক বচ্চন, রাজকুমার রাও, আদিত্য রায় কাপুর, ফাতিমা সানা শেখ, সানিয়া মালহোত্রাসহ অনেকে আছেন।

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0