default-image

সেরা ফিচার ছবিও হয়েছে ড্রামা ঘরানার ছবিটি। সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারও বাগিয়ে নিয়েছে ‘সুরারাই পতরু’। ছবিতে ‘সুন্দরী’ চরিত্রে অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন অপর্ণা বালমুরলি। এ ছাড়া সেরা চিত্রনাট্যের জন্যও পুরস্কার পেয়েছে সুধা কনগারা পরিচালিত ছবিটি। আগেই বহুল প্রশংসিত ছবিটির হিন্দি রিমেকের ঘোষণা এসেছে। যেখানে সুরিয়ার চরিত্রে দেখা যাবে অক্ষয় কুমারকে। সুরিয়া এবং ‘সুরারাই পতরু’ ছাড়াও এবারের পুরস্কারে দক্ষিণ ভারতের তারকাদের জয়জয়কার। ‘আয়াপ্পানুম কোশিয়ুম’-এর জন্য সেরা পরিচালক হয়েছেন প্রয়াত মালয়ালম পরিচালক সচিন্দানন্দন। এ ছাড়া সেরা পার্শ্ব অভিনেতা ও অভিনেত্রীর পুরস্কারও পেয়েছেন দক্ষিণি অভিনয়শিল্পীরা।

default-image

জাতীয় পুরস্কার জয়ের পর প্রতিক্রিয়ায় অজয় বলেছেন, ‘জাতীয় পুরস্কার পেয়ে অত্যন্ত আনন্দিত। আমার সঙ্গে সুরিয়া তাঁর ‘সুরারাই পতরু’র জন্য পুরস্কার পেয়েছেন। আমি সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। আমার সিনেমার ক্রিয়েটিভ টিম, দর্শক আর ভক্তদের ধন্যবাদ। বাবা-মায়ের কাছে আমি চিরকৃতজ্ঞ। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ। আমার পক্ষ থেকে সব জয়ীকে অভিনন্দন।’

default-image

সেরা হিন্দি ছবি হিসেবে পুরস্কার জয় করেছে রাজীব কাপুর ও সঞ্জয় দত্ত অভিনীত ‘তুলসীদাস জুনিয়র’। এদিকে জাতীয় পুরস্কারে সেরা বাংলা ছবি নির্বাচিত হয়েছে ‘অভিযাত্রিক’। অর্জুন চক্রবর্তী, সব্যসাচী চক্রবর্তী আর দিতিপ্রিয়া রায় এই ছবির মূল চরিত্রে আছেন। শুভ্রজিৎ মিত্র পরিচালিত ছবিটি সেরা সিনেমাটোগ্রাফির জন্যও পুরস্কার পেয়েছে। শুরুতে এই ছবিতে অভিনয় করার কথা ছিল বাংলাদেশি অভিনেতা আরিফিন শুভর। ভারতের ৬৮তম জাতীয় পুরস্কারের ১০ জন সদস্যের জুরিবোর্ডের প্রধান ছিলেন নির্মাতা বিপুল শাহ। পুরস্কারে চলতি বছর ৩০টি ভিন্ন ভিন্ন ভাষায় ৩০৫টি ফিচার ফিল্ম জমা পড়ে।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন