‘পাঠান’ সিনেমার ট্রেলার দেখার পর থেকে আলোচনায় আসে সিনেমাটির মারপিটের দৃশ্য। আজ সকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সিনেমাটির মারপিটের দৃশ্যগুলোর প্রশংসায় ভাসছেন দর্শক ও সমালোচকেরা। চলচ্চিত্র সমালোচক সুচিন মেহরোত্রা বেলা ১১টার দিকে টুইটে ‘পাঠান’-এর প্রশংসা করে লিখেছেন, ভারতীয় সিনেমায় শাহরুখের অ্যাকশনে দৃশ্যগুলো অসাধারণ। বিশেষ করে ক্রেডিট লাইনের অ্যাকশনকে তিনি ‘মারভেল’-এর সিনেমার সঙ্গে তুলনা করেছেন।

শাহরুখের ‘পাঠান’ নিয়ে ভক্তদের আগে থেকেই প্রত্যাশা ছিল অনেক বেশি। সিনেমা দেখে কতটা পূরণ হলো? শাহরুখের ভক্ত টুইটে লিখেছেন, ‘শ্বাসরুদ্ধকর অ্যাকশন দৃশ্য। “পাঠান”-এর সঙ্গে জিমের (জন আব্রাহাম) মারামারির দৃশ্য নিশ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো। তবে শাহরুখ ও জনের দৃশ্যগুলো অ্যাভারেজ প্রত্যাশা ছিল। সেখানে তারা প্রত্যাশা পূরণ করেছে।’ আরেক ভক্তে লিখেছেন, ‘হাইভোল্টেজ অ্যাকশন সিনেমা। সঙ্গে দারুণ গল্প! পরিচালক সিদ্ধার্থ আনন্দ তাঁর সেরাটা দিয়েছেন। শাহরুখ খানের অভিনয় দারুণ। জন আব্রাহাম, দীপিকা পাড়ুকোন—তাঁরাও দারুণ অভিনয় করেছেন। সিনেমাটি দেখে মনে হলো, আবার বলিউডের ত্রাণকর্তা ফিরেছেন।’

‘পাঠান’-এর নির্মাণ, গল্প উপস্থাপনা ও ক্যামেরার কাজের প্রশংসা করেছেন অনেকে। এ ছাড়া অতিথি চরিত্রে সালমানের অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন দর্শক। টুইটারে ভারতের চলচ্চিত্র বাণিজ্য বিশ্লেষক সুমিত কাদেল লিখেছেন, ‘সালমান ভাইয়ের “পাঠান”-এ এন্ট্রি আগুনের মতো। “পাঠান” ও “টাইগার”-র একসঙ্গে পর্দায় আসা মুহূর্তে দর্শকদের উচ্ছ্বাস দেখে মনে হলো সিনেমা হল নিচে নেমে যাচ্ছে। ভারতের সিনেমা ইতিহাসে শাহরুখ–সালমানের এই দৃশ্য সেরা একটা দৃশ্য হয়ে থাকবে। থিয়েটারকে যেন স্টেডিয়ামে পরিণত করেছে। বাপ রে বাপ, কিয়া অ্যাকশন দিখায়া হায়...’

দেশের দর্শকেরা যখন সিনেমাটির প্রথম শো দেখায় ব্যস্ত, তখন বিভিন্ন দেশে প্রথম শো শেষে দর্শকেরা ব্যস্ত রিভিউ নিয়ে। নিউজিল্যান্ড থেকে সিনেমাটি দেখে অনেকেই টুইটারে পছন্দের দৃশ্যের ভিডিও শেয়ার করেছেন। সেখানে শাহরুখ ছাড়াও সালমানের খানের ১০ মিনিটের অতিথি চরিত্র, জন আব্রাহাম, দীপিকার অভিনয়ের প্রশংসা করেন অনেকে। তাঁদের বেশির ভাগের মন্তব্য, অবশেষে বলিউড ফিরছে। একজন লিখেছেন, ‘নিউজিল্যান্ড থেকে প্রথম শো দেখলাম। অনেক অ্যাকশন দৃশ্য। আপনি যদি শাহরুখভক্ত হন, তাহলে আপনার কাছে এগুলো অনেক ভালো লাগবে। সিনেমার অন্যতম একটা চমক সালমানের সঙ্গে শাহরুখ খানের অংশ। বলিউডের সেরা অ্যাকশন সিনেমা। দারুণ বিনোদন পেয়েছি। এতটা ভালো প্রত্যাশা করিনি। দীপিকার অভিনয় অসাধারণ। শেষ পর্যন্ত সিনেমাটি দেখেছি। অনেক চমক রয়েছে। ট্রেলারে এর ৫ ভাগ দেখায়নি।’

আরেকজন লিখেছেন, ‘“পাঠান”-কে আমি ১০-এ ১০ দেব। ভিএফএক্স, ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর, ক্যামেরার কাজ প্রশংসার জোর দাবি রাখে। চার বছর পর শাহরুখ ফিরেছেন, এই সময়ে তাঁর কঠোর পরিশ্রম বৃথায় যাবে না। অনেকেই সিনেমাটি নিয়ে নেতিবাচক গুজব ছড়িয়েছিলেন, তাঁরা একবার গিয়ে সালমান খানের ১০ মিনিট অভিনয় দেখে আসুন, দেখুন এ কোন জন আব্রাহাম, এ কোনো শাহরুখ?’

তবে বেশ কিছু টুইটার ব্যবহারকারী সিনেমাটি নিয়ে কিছুটা বিরূপ মন্তব্য করেছেন। কেউ কেউ লিখেছেন, অনেক প্রত্যাশা নিয়ে সিনেমাটির প্রথম শো দেখতে গিয়েছিলেন, কিন্তু চিত্রনাট্য ও গল্প নিয়ে তাঁরা কিছুটা হতাশ। কেউ আবার সিনেমাটি দেখে মন্তব্য করেছেন, ‘পাঠান’ ‘মিশন ইম্পসিবল’ সিনেমার সস্তা ভার্সন। দেশকে বাঁচানোর জন্য ভালো অ্যাকশন দৃশ্যগুলোর পুনরাবৃত্তি ছিল। মোদ্দাকথা, খুব বেশি অ্যাকশন সিনেমা হয়ে গেছে। তাঁদের এসব মন্তব্যের নিচে শাহরুখভক্তদের পাল্টা মন্তব্য ছিল আক্রমণাত্মক। তাঁরা অনেকেই লিখেছেন, না দেখে এসব সমালোচনা।
সূত্র: হিন্দুস্থান টাইমস, টাইমস অব ইন্ডিয়া, দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, ইন্ডিয়া টু ডে, মিন্ট ও টুইটার।