সালমান নিজের আত্মরক্ষার্থে এবং পরিবারের সুরক্ষার কারণে এই আবেদন করেছিলেন। আর তার জন্য তাঁর শারীরিক পরীক্ষাও হয়েছিল। এখন মুম্বাই পুলিশ সালমানকে বন্দুক রাখার অনুমতি দিয়েছে। তাই এখন তিনি নিজের কাছে বন্দুক রাখতে পারবেন।

default-image

এদিকে আগেই খবর ছিল যে সালমান নিজেকে সুরক্ষিত করার জন্য নিজের গাড়িকে আপগ্রেড করেছেন। এখন তিনি ল্যান্ড ক্রজারে ভ্রমণ করবেন। আর এই গাড়ি বুলেটপ্রুফ। এমনকি গাড়ির সব কাচ বুলেটপ্রুফ বলে জানা গেছে।

default-image

ভাইজানের এই গাড়ি ল্যান্ড ক্রুজারের নতুন ভার্সন নয়। তিনি তাঁর পুরোনো গাড়িকে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে আপগ্রেড করেছেন। এবার থেকে সালমানকে সাদা রঙের বুলেটপ্রুফ ল্যান্ড ক্রুজারে সওয়ারি হতে দেখা যাবে। তাঁর সঙ্গে সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষীরাও থাকবেন। সালমান আগে ল্যান্ড রোভার ব্যবহার করতেন।

default-image

সালমান খানের বাবা সেলিম খান গত ৫ জুন ভোরবেলায় এক উড়োচিঠি পেয়েছিলেন। এই চিঠিতে সালমান আর তাঁর বাবাকে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়েছিল। গায়ক সিধু মুসেওয়ালার মতো তাঁদের হাল করা হবে বলে এই চিঠিতে উল্লেখ ছিল। পুলিশের সন্দেহ ১৯৯৮ সালে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলার সঙ্গে এই উড়োচিঠির সম্পর্ক আছে। সালমান এই মামলার অন্যতম মূল অভিযুক্ত। আর তাই গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার বদলা নিতে চান।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন