২০১০ সালে মুক্তি পেয়েছিল ‘দাবাং’। এরপর দ্রুতই ২০১২ সালে ‘দাবাং ২’ এলেও ‘দাবাং ৩’ আসতে সময় লেগেছিল সাত বছর। আরবাজ জানান, ‘দাবাং ৩’ আসতে অনেক সময় লাগলেও খুব দ্রুতই আসবে ‘দাবাং ৪’।

ছবির প্রথম দুই কিস্তি দর্শকের প্রত্যাশা পূরণ করলেও তৃতীয় কিস্তি দর্শকের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি। যদিও ছবিটি আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। তাই ‘দাবাং ৪’–এ সেই ভুলগুলো যাতে না হয়, সেই চেষ্টা করবেন আরবাজ খান।

আরবাজ বলেন, ‘আমাদের কাছে দর্শকের যে প্রত্যাশা, সে ব্যাপারে আমরা সচেতন। এই ছবি সেই প্রত্যাশার কথা মাথায় রেখে যত্ন নিয়ে নির্মাণ করতে চাই।’ আরবাজ এখন তাঁর অভিনীত ওয়েব সিরিজ ‘তানাভ’ নিয়ে ব্যস্ত আছেন। অন্যদিকে সালমান খান ‘কিসি কা ভাই কিসি কি জান’–এর শুটিং ও ‘বিগ বস’–এর সিজন ১৬–তে ব্যস্ত সময় পার করছেন।