বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ইন্ডাস্ট্রিতে এই যাত্রা নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন শাকিব। সেখানে তিনি ভক্তদের সঙ্গে সফলতার রহস্য ভাগ করে নেন। আর জানান, কঠোর পরিশ্রম আর দিনের পর দিন লেগে থাকার ফসল এই সফলতা। পোস্টে তিনি সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতেও ভোলেননি। তিনি লিখেছেন, ‘আমি যখন চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার শুরু করি, তখন অপরিপক্ব, তবে দূরদর্শী ছিলাম। কোথায় যাচ্ছি বা কী করব, কিছুই জানতাম না। শুধু এইটুকু জানতাম, আমাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। আর কোনো সময় হাল ছেড়ে দেওয়া যাবে না। আজ যখন ফিরে তাকাই, তখন আমি সকল মানুষ এবং অভিজ্ঞতার কাছে কৃতজ্ঞ।’

default-image

‘অনন্ত ভালোবাসা’ সিনেমায় শাকিবের বিপরীতে ছিলেন আরেক ঢালিউড তারকা মৌসুমীর ছোট ইরিন জামান। ইরিন বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। এই সিনেমায় আরও ছিলেন আবুল হায়াত, নাসির খান, রাজিব, আফজাল শরীফ, মিশা সওদাগর, ডলি জহুরসহ আরও অনেকে। আইএমডিবিতে ১৯৯৯ সালে মুক্তি পাওয়া দুই ঘণ্টা ৩৫ মিনিটের এই ছবির রেটিং ৭.১। এই ছবির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আবারও ধন্যবাদ জানিয়ে শাকিব লেখেন, ‘আমার প্রথম চলচ্চিত্র “অনন্ত ভালোবাসা”র পরিচালক ও প্রযোজকের কাছে কৃতজ্ঞ। তাঁরা আমাকে প্রথমবার সুযোগ দিয়েছিলেন। এরপর আমার সব পরিচালক, প্রযোজক, সহকর্মী, শুভাকাঙ্ক্ষী এবং বিশেষ করে আমার ভক্তদের ধন্যবাদ দিচ্ছি। তাঁদের জন্যই আজকের এই আমি।’

default-image

প্রায় দেড় মাস পর শুটিংয়ে ফিরেছেন ঢালিউড তারকা শাকিব খান। মঙ্গলবার উত্তরার একটি শুটিং বাড়িতে ছিল ‘লিডার: আমিই বাংলাদেশ’ সিনেমার মহরত। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুরু হয়েছে শাকিব খান ও বুবলীদের সিনেমার শুটিং, চলবে টানা ৩০ দিন।

default-image

সর্বশেষ ‘অন্তরাত্মা’ সিনেমার শুটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন শাকিব খান। পরে দেশে লকডাউন শুরু হলে কাজ থেকে বিরত ছিলেন এই অভিনেতা। এর মধ্যেই আটকে যায় ‘লিডার: আমিই বাংলাদেশ’ সিনেমার কাজ।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন