বিজ্ঞাপন

গত বছরের আলোচিত সিনেমা ‘বিশ্বসুন্দরী’–এর একটি ছোট্ট অংশ এটি। ২০২০ সালের ১১ ডিসেম্বর মুক্তি পেয়েছিল চয়নিকা চৌধুরী পরিচালিত রুম্মান রশীদ খানের কাহিনি ও চিত্রনাট্য অবলম্বনে নির্মিত সিয়াম-পরীমনি অভিনীত ছবিটি।

default-image

মাঝে বৈশ্বিক মহামারি করোনার প্রকোপ কিছুটা কম থাকায় টানা ১৬ সপ্তাহ প্রেক্ষাগৃহে দেখানো হয়েছিল। এবারের ঈদে ১৭টি প্রেক্ষাগৃহে নতুন করে মুক্তি পেতে যাচ্ছে সিয়াম-পরীমনি জুটির প্রথম এই সিনেমা। ছবিটির প্রযোজকের আশা, দর্শকদের বিশেষ অনুরোধে এবারের ঈদেও জনপ্রিয় এই ছবি বড় পর্দা মাতাবে।

default-image

যেসব প্রেক্ষাগৃহে ‘বিশ্বসুন্দরী’ চলবে, সেই প্রেক্ষাগৃহগুলো হলো আলোছায়া (শরীয়তপুর), আনন্দ (কুলিয়ারচর), মৌচাক (ভাঙ্গুরা), চলন্তিকা (গোপালদী), মেহেরপুর সিনেমা (মেহেরপুর), মোহন (হবিগঞ্জ), মনামী (খোকসা), নিউ রজনীগন্ধা (চালা), পূর্বাশা সিনেমা (শান্তাহার), রূপকথা (শেরপুর), সোহাগ (ঘোড়াশাল), ছন্দা (পটিয়া), ছন্দা (হাসনাবাদ), তিতাস (পটুয়াখালী), তুলি (নাভারণ), ডায়মন্ড (বোয়ালমারী), পড়শী (লাকসাম)।
পরিবেশক জাজ মাল্টিমিডিয়া সূত্রে জানা গেছে, হলের তালিকা আরও বাড়তে পারে।

default-image

সিনেমা হলের মালিকেরা বেশ আগ্রহ নিয়ে এবারের ঈদে প্রদর্শনের জন্য ‘বিশ্বসুন্দরী’কে বেছে নিয়েছেন। তাঁরা মনে করছেন, এ ধরনের গল্পের সিনেমা যেকোনো উৎসবে প্রদর্শিত হতে পারে। যাঁরা এর আগে বড় পর্দায় ছবিটি দেখেননি বা পুনরায় দেখতে চান, তাঁরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবারের ঈদে দেখতে পারেন। প্রযোজক সেসব প্রেক্ষাগৃহেই সিনেমাটি মুক্তি দিচ্ছেন, যেসব প্রেক্ষাগৃহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

‘বিশ্বসুন্দরী’ চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় গান ‘তুই কি আমার হবি রে’ খুব শিগগিরই ইউটিউবে ৫ কোটি ‘ভিউ’ পূর্ণ করতে যাচ্ছে। মাছরাঙা টিভি অফিশিয়াল ও জাজ মাল্টিমিডিয়ার ইউটিউব চ্যানেলে একযোগে মুক্তি পেয়েছিল গানটি।
ছবির চিত্রনাট্যকার রুম্মান রশীদ খান বলেন, ‘“বিশ্বসুন্দরী” প্রেমের গল্প, মানবতার গল্প, দেশের গল্প। সৌন্দর্য যে শুধু বাহ্যিক নয়, সৌন্দর্য হতে পারে মনের, মননের, সেটিই এ ছবির মূল প্লট। আমরা অনেক সময় মানুষকে বাহ্যিক সৌন্দর্য দিয়ে বিচার করি।’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন