বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কেন মনে হলো এখন ফেডারেশন গঠন করা জরুরি? এই প্রশ্নের জবাবে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান বলেন, ‘চলচ্চিত্রের অবস্থা ভালো নয়। সিনেমা হল কমে গেছে, ভালো ছবি নির্মিত হচ্ছে না, বাজেট নেই, সব শাখায় দক্ষ লোক নেই—সবকিছু মিলিয়েই আমাদের কাছে মনে হয়েছে, চলচ্চিত্রের উন্নয়নে ফেডারেশন না করলেই নয়। কীভাবে চলচ্চিত্রকে ঘুরে দাঁড় করানো যায়, তার শতভাগ চেষ্টাই আমরা করব এই ফেডারেশন দিয়ে।’

default-image

এই সময় সোহানুর রহমান সোহান আরও বলেন, ‘দেরিতে হলেও আমরা ফিল্ম ফেডারেশন গঠন করছি। ইন্ডাস্ট্রির লোক ও বাইরে থেকে বিশেষজ্ঞ এনে চলচ্চিত্রের উন্নয়নের কাজ কীভাবে করা যায়, সেগুলো নিয়ে আগে আলোচনা করব। আমাদের কোথায় কী সমস্যা, সেগুলো উঠে আসবে। চলচ্চিত্রশিল্পকে বাঁচাতে হবে।’ জানা যায়, এই ফেডারেশনের সদস্য হবেন চলচ্চিত্রের ১৮টি সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। তাঁদের মধ্য থেকে দুজন প্রধান দায়িত্ব পালন করবেন।

default-image

এক বছর ধরে চলচ্চিত্রের সংগঠনগুলোর মধ্যে দূরত্ব বাড়ছিল। এর সুরাহা করতেই শনিবার একত্র হয়েছিল তারা। সেখানেই আলোচনা হয় ফিল্ম ফেডারেশন নিয়ে। চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, ‘সিনিয়রদের সঙ্গে কথা হয়েছে। আমাদের উদ্দেশ্যের মধ্যে থাকবে এফডিসিতে কাজের পরিবেশ বাড়ানো। এফডিসিতে শুটিং ব্যয় কমানো, ল্যাবগুলো আধুনিকায়ন করা। আমরা যেন নিয়মিত কাজ করে সিনেমাকে এগিয়ে নিতে পারি, সিনেমাকে কেউ যেন হাস্যকরভাবে উপস্থাপনা করতে না পারে, সে জন্য এই ফেডারেশন গঠন সময়ে দাবি।’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন