বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সহ বেশ কয়েকটি সূত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে মোটামুটি নিশ্চিত করেছে, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের এবারের আসরে আবার বসন্ত ছবিতে অভিনয়ের জন্য সেরা নায়ক হতে যাচ্ছেন তারিক আনাম খান। আর জীবনের প্রথম সিনেমা ন ডরাই-এ অভিনয়ের জন্য সেরা নায়িকা হতে যাচ্ছেন সুনেরাহ বিনতে কামাল। আলোচনায় এঁদের নাম এগিয়ে থাকলেও এবারের আসরে সেরা অভিনেতা বিভাগে শাকিব খান, প্রাণ রায় এবং সেরা অভিনেত্রী বিভাগে শবনম বুবলী, নুসরাত ইমরোজ তিশা ও জ্যোতিকা জ্যোতির নামও শোনা যাচ্ছে।

default-image

শোনা যাচ্ছে, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৯-এ সবচেয়ে বেশি পুরস্কার ঘরে তুলতে যাচ্ছে মাসুদ পথিক পরিচালিত মায়া দ্য লস্ট মাদার ছবিটি। একটি সূত্র বলছে, এই ছবি আটটি বিভাগে পুরস্কার পেতে পারে। ছয়টি বিভাগে সেরার পুরস্কার অর্জনের খবর শোনা যাচ্ছে ন ডরাই ছবির। তিনটি করে পুরস্কার পাওয়ার খবর রয়েছে ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ফাগুন হাওয়ায় ও দেশ বাংলা মাল্টিমিডিয়ার মনের মতো মানুষ পাইলাম না ছবির।

default-image

যুগ্মভাবে সেরা ছবির জন্য ফরিদুর রেজা সাগরের ফাগুন হাওয়ায় ও মাহবুর উর রহমানের ন ডরাই ছবির নাম শোনা যাচ্ছে। প্রথমবারের মতো সেরা পরিচালকের পুরস্কার পেতে যাচ্ছেন তানিম রহমান।
এবার আজীবন সম্মাননাসহ মোট সাতটি বিভাগে যুগ্মভাবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দেওয়া হতে পারে।

default-image

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সাপলুডু সিনেমায় অভিনয়ের জন্য খল চরিত্রের শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হতে পারেন জাহিদ হাসান। প্রথম আলোর সঙ্গে আলাপে গতকাল সোমবার এই অভিনয়শিল্পী জানান, যদি খল চরিত্রে এবার তাঁকে নির্বাচিত করা হয়, তাহলে অভিনয়ের তিনটি বিভাগে তাঁর জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন হবে। এর আগে তিনি সেরা নায়ক এবং পার্শ্ব চরিত্রের সেরা অভিনেতার সম্মাননা অর্জন করেন।

সেরা গায়ক হিসেবে মৃণাল কান্তি দাস, যুগ্মভাবে সেরা গায়িকা হিসেবে মমতাজ বেগম ও ফাতিমা তুয যাহরা ঐশীর নাম শোনা যাচ্ছে।

শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী হিসেবে আফরীন আক্তার ও নাইমুর রহমান, সেরা সংগীত পরিচালক হিসেবে শুরু থেকেই চিরকুট ব্যান্ডের ইমন চৌধুরী, সুরকার তানভীর তারেক ও আবদুল কাদির, গীতিকার কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী ও নির্মলেন্দু গুণের নাম শোনা যাচ্ছে। এবার পার্শ্ব চরিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে ফজলুর রহমান বাবু পুরস্কার পেতে পারেন।

default-image

পুরস্কারের তালিকায় এসব নাম শোনা গেলেও বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত নয়। কেননা, এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা আসেনি, তাই শেষ মুহূর্তে কিছু বদলে গেলেও যেতে পারে বলে মনে করছেন কেউ কেউ।
এদিকে গত ১৭ নভেম্বর তথ্য মন্ত্রণালয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য মনোনীত ৩৩ জন শিল্পী ও  কলাকুশলীর পুরস্কার প্রদানে দরপত্র আহ্বান করেছে। দরপত্রে মনোগ্রামসহ ৩৩টি পাটের ব্যাগ, চেক ও সনদ ফোল্ডার তৈরির কথা উল্লেখ করা হয়।

default-image
ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন