বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মেসেঞ্জারে আলাপকালে শাবনূর জানিয়েছেন, জন্মের পর প্রথম মাকে ছাড়া কোথাও থাকতে হচ্ছে আইজানকে। শাবনূর বলেন, ‘করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে আসার এক দিন পর শুনলাম, আইজানেরও করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছে। টেস্টের পর জানা যায়, সে-ও করোনা পজিটিভ। একজন মায়ের জন্য এটা কতটা হৃদয়বিদারক ব্যাপার, বলে বোঝানো সম্ভব নয়। ছোট্ট ছেলেটা আমার বাসায় অসুস্থ, আমি মা হাসপাতালের বিছানায় পড়ে আছি। কাছে থাকতে পারছি না, কিছু করতেও পারছি না। ছেলেটার জন্য শুধু কাঁদছি। যদিও আমার মা তার টেককেয়ার করছে। ভিডিও কলে আমাদের মা-ছেলের কথাও হচ্ছে।’

default-image

পাঁচ দিন ধরে পিঠের ব্যথায় ভুগে গত ২৭ ডিসেম্বর সিডনির একটি হাসপাতালে এক্স-রে করাতে যান শাবনূর। করোনাসহ আরও বেশ কিছু পরীক্ষাও করান তিনি। হাসপাতালের কাজ শেষে নিজে গাড়ি চালিয়ে সিডনির বাসায় ফেরেন। বাসায় ঢুকতেই হাসপাতাল থেকে জানানো হয়, তিনি করোনায় আক্রান্ত। হঠাৎ এ খবরে বিস্মিত ও হতবাক তাঁর পরিবারের সবাই। এরপর ২৭ ডিসেম্বর আইসোলেশনে চলে যান শাবনূর। পরদিন শ্বাসকষ্ট শুরু হলে ২৯ ডিসেম্বর বুধবার সিডনির স্থানীয় সময় বেলা দুইটায় তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হন।

default-image

পরিবার নিয়ে কয়েক বছর ধরে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে থাকেন ঢালিউডের একসময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবনূর। তিনি নিয়মিত বাংলাদেশে যাওয়া-আসা করেন। পৃথিবীব্যাপী করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় অনেক দিন হলো দেশে আসতে পারেননি তিনি। শাবনূর জানান, অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের ওয়েস্টমেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলেও, এখনো করোনা নেগেটিভ ফল পাননি শাবনূর।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন