বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ফ্রিজার ভ্যান চালাতে গিয়ে মজার কিছু ঘটেছিল কি না, জানতে চেয়েছিলেন অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা পূর্ণিমা। জবাবে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘রাত তিনটার সময় কারওয়ান বাজারে প্রথম দিন আমার শুটিং ছিল। বিভিন্ন অঞ্চলে লাশ দিয়ে ফেরার সময় একটু বাড়তি আয়ের জন্য মাছ বা শাক নিয়ে আসি এবং সেগুলো কারওয়ান বাজারে বিক্রি করি।

default-image

এমনই একটি ট্রিপ শেষ করে ঘাট থেকে ইলিশ মাছ নিয়ে এসে ফ্রিজার ভ্যান খুলে দেখি, একটি লাশ। ওই শট দিয়েই আমার শুটিং শুরু হবে। আগেই ওদের বলেছিলাম, আমার গাড়ি তো অটো, তাই আমাকে একটি অটো ফ্রিজার ভ্যান দিয়ো। শুটিংয়ের আগে ফ্রিজার চালাতে গিয়ে দেখি, গাড়িটি ম্যানুয়াল। কিন্তু আমি তো ম্যানুয়াল গাড়ি চালাই না। সারা ঢাকা শহর খুঁজেও কোনো অটো ফ্রিজার ভ্যান পাওয়া গেল না। পুরো ওয়েব সিরিজেই আমাকে ফ্রিজার ভ্যান চালাতে হবে। গাড়ি অটো না হলে তাই সমস্যা। আর ডামি ড্রাইভার ব্যবহার করলে আমি কাজটি করব না। এ ছাড়া বিষয়টি ভালোও হবে না।’

default-image

তাহলে সমস্যার সমাধান হলো কী করে? চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘গাড়ির কারণে প্রথম দিন শুটিং প্যাকআপ করা হলো। প্যাকআপ হওয়ার পর ফ্রিজারের ড্রাইভারকে বললাম, তুমি সারা দিন আমাকে ম্যানুয়াল গাড়ি চালানো শেখাবে। শেখার জন্য আমার চলে গেলাম শেরেবাংলা নগরের বাণিজ্য মেলার মাঠে। ৩০ মিনিটের মধ্যেই মোটামুটি ম্যানুয়াল গাড়ি চালানো শিখে গেলাম। আসলে, আমি যখন গাড়ি চালানো শিখি, তখন এক সপ্তাহের মতো ম্যানুয়াল গাড়ি চালানো শিখেছিলাম। কিন্তু এরপর আর কখনো চালাইনি। যাহোক, পরের দিন থেকেই আমাদের শুটিং শুরু হলো এবং মোটামুটি ৯৯ ভাগ গাড়ি চালানোর শট আমার দেওয়া। লং শটেও আমি গাড়ি চালিয়েছি।’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন