default-image

লম্বা সময় চুপচাপ ছিলেন বুবলী। সে সময়ে চলচ্চিত্রের কারও সঙ্গে সামনাসামনি দেখা হয়নি খুব একটা। তবে ফোনে অনেকের সঙ্গে কথা হতো। কেউ কেউ ছবিতে অভিনয়ের জন্য যোগাযোগ করতেন। কিন্তু ব্যাটে-বলে না মেলায় সেসব ছবিতে ‘হ্যাঁ’ করেননি এই অভিনেত্রী। এবার তিনি নতুন ছবিতে নাম লেখালেন, বিরতির পর চুক্তিপত্রে সই করা সেই ছবির নায়ক নিরব ও রোশান।
ছবিটির নাম ‘চোখ’। জানা গেছে, ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে নারায়ণগঞ্জে ছবিটির শুটিং শুরু হতে পারে। একটানা শুটিং করেই ছবির কাজটি শেষ করতে চান পরিচালক আসিফ ইকবাল। জানা গেছে, গত রোববার নিরবের সঙ্গে ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় ঢাকার গুলশানের একটি রেস্তোরাঁয় বুবলীও চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন।

default-image

এর আগে ‘ক্যাশ’ নামের একটি ছবিতেও অভিনয়ের কথা শোনা গিয়েছিল বুবলীর। শেষ পর্যন্ত সম্মানী নিয়ে বনিবনা না হওয়ায় ছবিটি চূড়ান্ত হয়নি। বুবলী বলেন, ‘আমি লম্বা সময় ধরে নিজের মতো করে ছিলাম। ওই সময়েও একাধিক পরিচালক-প্রযোজক তাঁদের ছবির ব্যাপারে কথা বলেছেন। মনের মতো গল্প পাচ্ছিলাম না। এই ছবির গল্পটা আমার বেশ ভালো লাগে। তাই ছবিটিতে অভিনয় করতে রাজি হয়েছি। “চোখ” ছবিতে আমাকে করপোরেট লেডি হিসেবে দেখানো হবে। এর বেশি আপাতত আর কিছু বলতে চাই না।’

বিজ্ঞাপন
default-image

‘চোখ’ ছবির পরিচালক আসিফ ইকবাল এরই মধ্যে ২৫টি নাটক বানিয়েছেন। বানিয়েছেন স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রও। এবারই প্রথম তিনি চলচ্চিত্র পরিচালনা করতে যাচ্ছেন। ছবিটির চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন অনামিকা মণ্ডল। পরিচালক আসিফ ইকবাল বলেন, ‘হরর, থ্রিলার ও করপোরেট—এ তিন ধরনের গল্পে ছবির কাহিনি এগিয়ে যাবে। একেবারে নতুন ধরনের একটা ধারায় গল্পটা বলার চেষ্টা করব।’
বুবলী সম্প্রতি অভিনয় করেন ‘ক্যাসিনো’ ছবিতে। আর তাঁর শেষ মুক্তি পাওয়া ছবিটি হচ্ছে ‘বীর’, এ ছবিতে তিনি অভিনয় করেন শাকিব খানের বিপরীতে। ঢাকাই সিনেমার আলোচিত এই নায়িকা একটা সময় সংবাদ পাঠক ছিলেন। শাকিব খানের সঙ্গে ‘বসগিরি’ ছবিতে অভিনয় করে তিনি নায়িকা হিসেবে পরিচিতি পান। ২০১৬ সালে মুক্তি পেয়েছিল সিনেমাটি। প্রথম সিনেমা মুক্তির পরই আলোচনায় আসেন এই চিত্রনায়িকা। তারপর শাকিব খানের সঙ্গে অভিনয় করেন আরও ১০টি সিনেমায়। আলোচিত হয় শাকিব-বুবলী জুটি। শাকিব খানের বাইরেও এই চিত্রনায়িকার অভিনয় করেছেন। নিরব ও বুবলীর ‘ক্যাসিনো’ নামের সেই ছবিটি এখনো আলোর মুখ দেখেনি।

default-image

‘ক্যাসিনো’ ছবির শুটিং শেষেই আড়ালে চলে যান বুবলী। চলচ্চিত্রের হাতে গোনা কয়েকজন ছাড়া আর কারও সঙ্গে দেখা করা কিংবা কথা হয়নি তাঁর। পুরো সময়ে নিজের মতো করেই ছিলেন। আড়ালে থাকার কয়েক মাস পরে এ বছরের জানুয়ারিতে বুবলী কথা বলেন প্রথম আলোর সঙ্গে। তখন জানা যায়, লম্বা সময় ধরে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ছিলেন। আড়ালে থাকার কারণ প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘আমি যখন কাজে থাকি, শেষ না হওয়া পর্যন্ত খুব সিনসিয়ার থাকি। আমার কাজের চাপ যখন কম থাকে, পরের কোনো প্রজেক্টে নিজেকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করার ভাবনা থাকে, গ্যাপ পেলেই তখন আমি আমার মতো থাকি। গত বছর ফেব্রুয়ারিতে আমার “বীর” ছবিটি মুক্তি পায়। এর কিছুদিন পরই আমি দেশের বাইরে যাই। ২০১৯ সাল থেকেই আমি পরিকল্পনা করেছিলাম, দেশের বাইরে যাওয়ার। নির্দিষ্ট করে কোনো পরিকল্পনা ছিল না। যেহেতু কাজের চাপ নেই, হাতে থাকা ছবির কাজও শেষ করেছি, তাই ভাবলাম দেশের বাইরে যাই। সময় পেয়েই আমি আমেরিকায় চলে যাই। আমি যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পরই লকডাউন শুরু হয়। মার্চ মাসে পরিকল্পনা ছিল ক্লাস শুরুর। কোভিডের কারণে আমার পরিকল্পিত যে টাইম ডিউরেশন ছিল, তা কমিয়েও আনতে হয়েছিল। তিন মাস টার্গেট করে গেলেও এক মাসে কোর্স শেষ করতে হয়েছে। ভেবেছিলাম কোর্স শেষে ঢাকায় ফিরব। কিন্তু করোনার কারণে তা আর হয়নি। তা ছাড়া ব্যক্তিজীবনেও যেহেতু নিজেকে সময় দিতে চেয়েছি, তাই কোর্সের পাশাপাশি সেখানে থেকে যেতে হয়।’

বিজ্ঞাপন
default-image

কথায় কথায় বুবলী জানান, করোনাকালে যুক্তরাষ্ট্রে থাকার সময়ে জীবনটাকে নতুন করে উপলব্ধি করতে শিখেছেন তিনি। বুবলী বলেন, ‘এই সময়ে আমি নতুনভাবে জীবনকে জানলাম। নিউইয়র্কে করোনায় আক্রান্তের হার সবচেয়ে বেশি ছিল। প্রতিদিনই খবর পাচ্ছিলাম। কী যে ভয়াবহ আতঙ্ক! প্রতিদিন ঘুম ভাঙত অ্যাম্বুলেন্সের শব্দে। সূর্য দেখে ভাবতাম, এখনো বেঁচে আছি তাহলে। সত্যিই জীবনের ভয়াবহ একটা সময় পার করেছি। সময়টার জন্য আমরা কেউই প্রস্তুত ছিলাম না। আমার মনে হয়, যদি আগামী দিনে লেখালেখিতে দক্ষতা অর্জন করতে পারি, লকডাউনের সময়কার অভিজ্ঞতা নিয়ে একটি বই লিখব।’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন