‘নবাব এলএলবি’ ছবিতে অভিনয় করেছেন মাহিয়া মাহী, শাকিব খান ও অর্চিতা স্পর্শিয়া।
‘নবাব এলএলবি’ ছবিতে অভিনয় করেছেন মাহিয়া মাহী, শাকিব খান ও অর্চিতা স্পর্শিয়া।সংগৃহীত।

বিদেশে গানের শুটিং, দেশের শিল্পীর কণ্ঠে গান রেকর্ড করেও পরে ভারতীয় শিল্পীকে দিয়ে টাইটেল গান রেকর্ডিং, শিল্পীর সম্মানী নিয়ে গড়িমসি, ছবি মুক্তির দিনক্ষণ বারবার পরিবর্তন—সব মিলিয়ে ‘নবাব এলএলবি’ ছবিটি নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি করেছেন পরিচালক অনন্য মামুন। পরিচালকের এমন আচরণে নায়ক-নায়িকা, সংগীতশিল্পী ও সংগীত পরিচালকসহ ছবিটির সঙ্গে যুক্ত অনেকে বিরক্ত। শিল্পীদের সঙ্গে কথা বলে তেমনটাই জানা গেছে।

default-image

এ বছরের সেপ্টেম্বরে দেশের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী পান্থ কানাই ‘নবাব এলএলবি’ ছবির টাইটেল গানে কণ্ঠ দিয়েছিলেন। সম্প্রতি অ্যাপে ছবির গান মুক্তির পর দেখা গেল, গানটি গেয়েছেন ভারতীয় একজন সংগীতশিল্পী, যাঁর কোনো কিছুই শিল্পী পান্থ কানাই জানেন না। অন্যদিকে অনন্য মামুন প্রথম আলোকে বললেন, ‘পান্থ কানাই বিষয়টি জানেন। তাঁর গাওয়া গানটি আমাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি বলেই বাদ দিতে হয়েছে। গানটি প্রকাশের পর তিনি (পান্থ কানাই) যখন দেখলেন, অন্য একজন শিল্পী গেয়েছেন, তিনি তাঁর নেওয়া সম্মানী ফেরত দিতেও চেয়েছেন। কিন্তু আমি তা নিইনি। বলেছি, থাকুক।’

default-image
বিজ্ঞাপন

বিষয়টি অনন্য মামুনের মিথ্যাচার বলে প্রথম আলোকে জানালেন পান্থ কানাই। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনি প্রথম আলোকে বললেন, ‘আমার গানটি যে সিনেমা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে, তা আপনার কাছ থেকেই প্রথম জানলাম। আমাকে কিছুই জানায়নি। টাকা ফেরত দেওয়ার প্রসঙ্গ তো অনেক পরের কথা। গানটি রেকর্ডের পর অনন্য মামুনের সঙ্গে আমার কোনো আলাপই হয়নি।’
পান্থ কানাইয়ের গাওয়া গানটি নিয়ে প্রথম আলোকে ভালো লাগার কথা জানিয়েছিলেন এই ছবির নায়ক শাকিব খানও। তিনি বলেন, ‘পান্থ কানাইয়ের গাওয়া গানটি অসাধারণ ছিল। শুটিংয়ের সময়ও এই গান নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি। গান মুক্তির পর দেখছি, কোনো কারণ ছাড়াই শিল্পী বদলে গেল। পরে যিনি গেয়েছেন, গানটি নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্যই এসেছে। ভক্ত–শ্রোতাদের সবাই পান্থ কানাইয়ের গানটি শুনতে চেয়েছেন।’

default-image

ভারতীয় শিল্পীর কণ্ঠে গাওয়া ‘আমি নবাব’ গানটি সাড়া ফেলতে পারেনি। ফেসবুক ও ইউটিউবে এ নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য দেখা গেছে বেশি। দর্শকদের আরও আক্রমণাত্মক মন্তব্য পড়েছেন অনন্য মামুনের ফেসবুক পোস্টের বিভিন্ন মন্তব্যে। তবে দর্শক ক্ষিপ্ত হওয়ার আরও কারণ হচ্ছে, তাঁরা স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গে অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারছেন না।

default-image

পান্থ কানাই জানালেন, ‘‘‘নবাব এলএলবি’’ ছবির গানটি গাওয়ার জন্য আমাকে মাত্র ১৫ হাজার টাকা সম্মানী দেওয়া হয়, এই সম্মানীতে সাধারণত আমি গান গাই না। যেহেতু শাকিব খানের মতো একজন বড় তারকার লিপে প্রথমবার আমার কোনো গান যাচ্ছে, তাই খুব বেশি কিছু বলে আরও কিছু সম্মানী বাড়ানোর কথা বলেছিলাম। পরিচালক আশ্বস্ত করেছিলেন, পরে দেবেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত কোনো খবর নেননি। আর এখন বুঝি তিনি বলে বেড়াচ্ছেন, গান বাদ দেওয়ার বিষয়টা আমাকে জানানো হয়েছে এবং আমি সম্মানী ফেরত দিতে চেয়েছি! এ কেমন মিথ্যাচার।’

default-image
বিজ্ঞাপন

একজন শিল্পী একটা প্রজেক্টের জন্য তো সারা বছর ফ্রি থাকবে না। বারবার ডেট নেবেন, বারবার কারণ ছাড়াই ব্যর্থ হবেন—তা তো হতে পারে না। সমস্যা হলে জানাতে তো হবে—এভাবেই ক্ষোভ ঝাড়লেন মাহিয়া মাহি। তিনি জানালেন, ‘শুটিংয়ের দিন নিয়ে সেই দিনে শুটিং বাতিল হলে কোনো জানানোর প্রয়োজনও মনে করেনি পরিচালক। এত বছরের অভিনয়জীবনে এমনটা দেখিনি। এটাকে পুরোপুরি অপেশাদার আচরণ মনে হয়েছে। এদিকে গানের জন্য আমি দিনের পর দিন ডায়েটও করছি। কিন্তু পরিচালকের কোনো খবর নেই!’

default-image

শুটিংয়ের সময় জানানো হয়, ২৩ অক্টোবর ছবিটি মুক্তি দেওয়া হবে। তার আগে লন্ডনে গানের শুটিং করা হবে। করোনার কারণে পরে পরিকল্পনা করা হয়, গানের শুটিং হবে দুবাই। পরবর্তী সময়ে পরিচালক অনন্য মামুন সেই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে মালদ্বীপে গানের শুটিং চূড়ান্ত করেন। অক্টোবর ও নভেম্বরে কয়েক দফা ঘোষণা দিয়েও দেশের বাইরে গানের শুটিং করা হয়নি। প্রথম আলোকে পরিচালক অনন্য মামুন সর্বশেষ জানান, ২৭ নভেম্বর শাকিব খান ও মাহিয়া মাহির দুটি গানের শুটিং মালদ্বীপে করা হবে। গানের শুটিংয়ে মাহীসহ যাওয়ার কথা থাকলেও শুধুমাত্র শাকিব খানকে বিমানের টিকিট দেওয়া হয়। এদিকে ২৭ তারিখেও গান দুটির শুটিংয়ে যাওয়ার বিষয়টিতে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়।

default-image

এদিকে একটি দায়িত্বশীল সূত্র প্রথম আলোকে জানিয়েছে, অ্যাপে ‘নবাব এলএলবি’ দুই দফায় মুক্তি দেওয়ার চিন্তা করছেন পরিচালক অনন্য মামুন। অ্যাপ সাবস্ক্রাইব করাতে এমন কৌশল অবলম্বন করছেন তিনি। ছবির সঙ্গে যুক্ত কেউ কেউ আবার এ–ও বলছেন, ‘নবাব এলএলবি’ ছবি হিসেবে নির্মিত হলেও এটিকে দুই পর্বের ওয়েব সিরিজ আকারে চালিয়ে দেওয়া হবে না তো আবার! এমন আশঙ্কা প্রকাশ করছেন নায়ক-নায়িকাদের কেউ কেউ। অর্ধেক ছবি দেখিয়ে সবাইকে বাকি অর্ধেকসহ পুরো ছবি দেখতে প্রেক্ষাগৃহে যাওয়ার আহ্বান জানাবেন বলেও শোনা যাচ্ছে। দেখা যাক কী হয়। অপেক্ষা করতে হবে ছবিটি মুক্তির দিন পর্যন্ত।  ডিসেম্বর মাসেই ছবিটির মুক্তি নিয়ে ইতিমধ্যেই তোড়জোড় শুরু করেছেন অনন্য মামুন। আজ ঢাকার একটি পাঁচতারা হোটেলে ছবিটির মুক্তি উপলক্ষে অ্যাপ লঞ্চিং অনুষ্ঠানের আয়োজন করে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি। সেখানে যাননি শাকিব খান, মাহিয়া মাহীসহ ছবির শিল্পীদের অনেকেই।

default-image
মন্তব্য করুন