বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

নচিকেতা চক্রবর্তী আনন্দবাজার অনলাইনকে বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমার পরীমনিকে ভালো লাগে। ভীষণ সাহসী। যেটা বলা উচিত, সেটা সবার সামনে বলার ক্ষমতা রাখেন, যা খুব সহজ নয়। যা করছেন, বেশ করছেন তিনি।’

নচিকেতা বলেন, ‘আমি জানি, পরীমণি আমার গান শোনেন। পছন্দও করেন। আমি ওঁর অনুপ্রেরণা জেনে ভালো লাগছে। সবার বোঝা উচিত, অভিনেত্রীরও “না” বলার অধিকার আছে। সেই “না” উচ্চারণ করেই তিনি আজ এত বিপাকে। এটা ওঁর দোষ নয়, সমাজের দোষ।’

default-image

এই গায়ক মনে করেন, সমাজের এই ধারা সব জায়গাতেই সমান। শুধু বাংলাদেশ নয়, ভারতের চিত্রও এক। নচিকেতা উদাহরণ হিসেবে ষাটের দশকের জনপ্রিয় ভারতীয় অভিনেত্রী মালা সিনহার কথা বলেন, ‘সেই সময় ওঁকে (মালা সিনহা) শুনতে হয়েছিল, ওঁর যাবতীয় উপার্জন নাকি বেশ্যাবৃত্তি করে হয়েছে। সমাজ বরাবর নিজের জোরে ওপরে উঠতে থাকা নারীদের গায়ে কালি মাখিয়ে তাদের নিচে নামিয়েছে।’ এ সময় পরীমনিকে সাহস জুগিয়ে তাঁর পাশে থাকার অঙ্গীকার করেন তিনি। বলেন, ‘আপনাকে পূর্ণ সমর্থন জানাই। সব সময় পাশে আছি।’

default-image

৪ আগস্ট রাতে প্রায় চার ঘণ্টার অভিযান শেষে বনানীর বাসা থেকে পরীমনি ও তাঁর সহযোগী দীপুকে আটক করে র‍্যাব। ৫ আগস্ট তারা বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পরীমনি ও তাঁর সহযোগীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মামলা করে। এরপর রিমান্ড, জেল শেষে ৩১ আগস্ট ৫০ হাজার টাকা মুচলেকায় পরীমনির জামিন মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন