মমির ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘কয়েক বছর ধরে নন-ফিকশনে দুঃসাহসিক, অপ্রত্যাশিত, বুদ্ধিদীপ্ত আর দুর্দান্ত সব কাজ হচ্ছে। এখনকার নন-ফিকশন চলচ্চিত্রকারেরা সিনেমার নতুন ঘরানা সৃষ্টির ক্ষেত্রে প্রতিশ্রুতিশীল। ছবিগুলো দেখতে শুরুতে অসংলগ্ন লাগলেও এগুলোকে তথ্যচিত্র মনে করা যাবে না।’

মমির ফার্স্ট লুক একটি নন-কম্পিটিটিভ ফেস্টিভ্যাল, যেখানে মাত্র ১৮টি পূর্ণদৈর্ঘ্যের ছবি দেখানো হচ্ছে। সেসবের মধ্যে উদ্বোধনী প্রদর্শনীতে রয়েছে ২০২১ সালে কান চলচ্চিত্র উৎসবে ক্যামেরা দ’র বিজয়ী ছবি ‘মুরিনা’ আর সমাপনী প্রদর্শনীতে লোকার্নো চলচ্চিত্র উৎসবে গ্রাঁ প্রি বিজয়ী ‘ব্যালকনি’। এ ছাড়া ‘পেত্রভস ফ্লু’ ২০২১ সালে কানে পাম দ্য’র দৌড়ে এগিয়ে ছিল এবং সিনেমাটোগ্রাফির জন্য পুরস্কৃত হয়েছে। ‘মি. ল্যান্ডবার্গিস’ ইডফায় শ্রেষ্ঠ ছবি হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছে, ‘বাবই ইয়ার কনটেক্সট’ কানে বিশেষ পুরস্কার পেয়েছে, ‘ফেদার’ কানের ক্রিটিকস উইকে গ্রাঁ প্রি পেয়েছে। এগুলোর মধ্যে এবারই প্রথম ও একমাত্র নির্বাচিত বাংলা ছবি ‘অন্যদিন...’।

default-image

উল্লেখ্য, গত নভেম্বরে বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চলচ্চিত্র উৎসব আমস্টারডামের ইডফার মূল আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত এবং পৃথিবীর নান্দনিকতম থিয়েটার আমস্টারডামের তুসান্সকিতে বিশ্ব অভিষেক হয় ‘অন্যদিন...’– এর। ২০১৭ সালে কান চলচ্চিত্র উৎসবের সিনফন্দেশিওনে বিশেষ আমন্ত্রণ পেয়েছিল ‘অন্যদিন...’, লোকার্নোতে ওপেন ডোর্সে শ্রেষ্ঠ পুরস্কার এবং আর্তে ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ পেয়েছিল, যার জন্য প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের কোনো নির্মাতা হিসেবে কামারকে পিয়াতজা গ্রাঁন্দায় সম্মাননা দেওয়া হয়। ‘অন্যদিন...’ ছবিটি শিগগিরই সেন্সরে জমা দেওয়া হবে বলে জানালেন প্রযোজক সারা আফরিন।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন