default-image

অভিনয়ে যখন একটু একটু করে নিজের অবস্থান শক্ত করছিলেন, তখন ভাবছিলেন প্রিয় তারকাকে কীভাবে সম্মাননা জানানো যায়। সেই প্রসঙ্গে সিয়াম জানান, তিনি ‘পোড়ামন-২’ সিনেমা দিয়ে বড় পর্দায় নাম লিখিয়েছিলেন। তাঁর চরিত্রের নাম ছিল সুজন। সে নব্বই দশকের এক চিত্রনায়কের ভক্ত। চরিত্রটি বুঝিয়ে দেওয়ার সময় সিনেমাটির পরিচালক রায়হান রাফি তাঁকে প্রশ্ন করেন, নব্বইয়ের কোনো নায়কের ভক্ত হতে পারে এই সুজন?

default-image

তখন বিন্দুমাত্র দেরি না করে সিয়াম সঙ্গে বলে দেন, সালমান শাহ। কেন সেদিন অকপটে সালমানের নাম বলেছিলেন? সিয়াম জানান, শৈশবে সালমান শাহ বলতে তিনি পাগল ছিলেন। এমনকি চলচ্চিত্রে আসার প্রেরণা সালমান শাহর কাছ থেকেই পেয়েছেন। সিয়াম বলেন, ‘আমাদের পুরো প্রজন্মটাই সালমান শাহর অভিনয়ে বুঁদ হয়েছিলেন। সালমান মানেই অন্য রকম ব্যাপার—স্টাইল, অভিনয়ের ধরন, জীবনযাপন আমাকে প্রভাবিত করেছিল। আমার প্রথম সিনেমায় যখন তাঁকে ট্রিবিউট জানানোর সুযোগ এল, তখন আর দেরি করিনি। এমন একজন নায়কের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর এটাই সবচেয়ে ভালো সূচনা ছিল।’

default-image

সিয়াম আরও বলেন, ‘এখন নিয়মিত সিনেমার শুরুর পরে উপলব্ধি করি, স্টাইল লুক, অন্যান্য গেটআপ একটি চরিত্রের জন্য কত গুরুত্বপূর্ণ। সব মিলিয়ে চরিত্রে বৈচিত্র্য আনা কত কঠিন। পোড়ামন-২ সিনেমার শুটিংয়ের যখন চেষ্টা করছিলাম সালমান শাহর মতো লুকে সাজতে, তখন বেশি সালমানকে অনুধাবন করতে পেরেছি। অথচ সালমান শাহ প্রতিটি ছবিতে ব্যতিক্রমী স্টাইলে হাজির হতেন। তাঁর অভিনয়ে তো আমরা বুঁদ হয়ে থাকতাম। অভিনয় ছাড়াও একটা পুরো প্রজন্মের কাছে স্টাইলের জন্য আদর্শ হওয়া সহজ কথা নয়। একজন তারকাকে ফলো করে তাঁর মতো চশমা পরা, জিন্স পরা, শার্ট পরা এমন ভক্ত কতজন তারকার ভাগ্যে জোটে? আমরা এগুলো করেছি।’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন