default-image

তবে সালওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন নবাব আলী হাসিব খান, প্রথম আলোর প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সালওয়াকে কোনো হুমকি তিনি দেননি।
ফেসবুক পোস্টের বিষয়ে জানতে চাইলে সালওয়া প্রথম আলোকে বলেন, হাসিবের সঙ্গে তার ছয় মাসের প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। সালওয়ার ভাষ্যে, ‘কিছুদিন ধরে আমাকে মানসিকভাবে নানা ধরনের চাপ দিয়ে আসছিলেন। কিন্তু সিনেমা মুক্তির পর থেকে আমাকে আরও বেশি চাপ দিচ্ছেন। এখনই আমাকে বিয়ে করতে চান। তা ছাড়া আমি কোথায় যাচ্ছি, কী করছি, সবই তাঁকে প্রতিমুহূর্তে জানাতে হবে—এসবসহ নানা মানসিক চাপ। এসব চাপ আমি আর নিতে পারছি না। এ কারণে আমি তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে চাইনি। এটি শোনার পর থেকে সে আমাকে মেরে ফেলাসহ নানা ধরনের হুমকি দিচ্ছে।’

default-image

সালওয়া বলেন, ‘হাসিব হুমকি দিচ্ছেন, তাঁর কাছে নাকি আমার বিশেষ ভিডিও ফুটেজ, স্টিল ছবি আছে। সেগুলো সোশ্যাল মিডিয়াতে ছেড়ে দেবে সে। আমি আর এসব হুমকি নিতে পারছি না।’

সালওয়া জানান, এর প্রতিকার পেতে হাসিবের পরিবারের সদস্যদের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন। পরিবার আশ্বাস দিলেও কাজ হয়নি। বলেন, ‘প্রেমের বিষয়টি হাসিবের পরিবার জানত। এ ঘটনার পর তাঁর ছোট বোনকে বিষয়টি জানিয়েছি। তাঁরা বলেছেন, “রাগের মাথায় হাসিব এসব করছে, ঠিক হয়ে যাবে।” কিন্তু কোনো কিছুই ঠিক হয়নি। একের পর এক হোয়াটসঅ্যাপে হুমকি দিয়েই যাচ্ছেন।’
আইনের আশ্রয় নেবেন কি না—জানতে চাইলেন সালওয়া বলেন, ‘এসব হুমকির প্রমাণ আমার কাছে আছে। আমি শিগগিরই আইনের আশ্রয় নেব।’

default-image

তবে মেরে ফেলার কথা, ভিডিও ফুটেজ, ছবি ছেড়ে দেওয়ার কথা অস্বীকার করে প্রথম আলোকে হাসিব বলেন, ‘আমাদের প্রেমের সম্পর্ক। আমাদের দুজনের ঝগড়া হয়েছে। ঝগড়া হইতেই পারে। আর আমি মেরে ফেলার কে? আমার বাবা রাজনীতি করেন। একটা সম্মান আছে। তা ছাড়া আজ পর্যন্ত আমার নামে কোনো ক্রাইম নাই, পাবেনও না।’

default-image

ভিডিও ছাড়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগত ভিডিও আমি কাকে দেব, কোথায় ছাড়ব? এটা কোনো দিন হয়?’ হাসিবের অস্বীকারের ব্যাপারে সালওয়া বলেন, ‘এখন এটা বললে তো হবে না। কারণ, হুমকি দিয়ে পাঠানো সব ডকুমেন্ট আমার কাছে আছে।’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন