default-image

শাকিব খানের প্রতি মুগ্ধতা প্রকাশ করে টনি ডায়েস লিখেছেন, ‘শাকিবের অভিনয়ে মুগ্ধ হয়েছি। নিজেকে ভাঙার চেষ্টা করেছেন। এই ভাঙাটা ধরে রাখলে আমার বিশ্বাস তাঁর ক্যারিয়ারে আরও চ্যালেঞ্জিং চরিত্র যোগ হবে, যা দেখার জন্য সব শ্রেণির দর্শক অপেক্ষায় আছেন।’ এ ছাড়া পূজা ও সুচরিতার অভিনয়ও তাঁর মন জুড়িয়ে দিয়েছে বলেও জানালেন।

‘গলুই’ ছবির অন্য অভিনয়শিল্পীদের প্রশংসা করে তিনি লিখেছেন, ‘সিনেমা তো আসলে টিমওয়ার্ক। সবাই ভালো করলেই ভালো সিনেমার সৃষ্টি হয়। সে ক্ষেত্রে প্রত্যেকেই যে যাঁর স্থান থেকে ভালো কাজ করেছেন। পরিচালককে সাধুবাদ দিতে হয়, অনেক ভালো শিল্পীর সমাবেশ এই সিনেমায় তিনি করেছেন।’

default-image

কথায়–কথায় টনি জানালেন, নাটক ও চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে সাউন্ড আর সিনেমাটোগ্রাফির মানে কখনো ছাড় দিতে পছন্দ করেন না ছোট পর্দার জনপ্রিয় এই অভিনেতা। তাই তিনি বললেন, ‘সিনেমার পর্দা কিন্তু শুধু অভিনয় নয়, চোখে দেখা আর কানে শোনার সঙ্গেও জড়িত। আমার মন কেড়ে নিয়েছে ছবির আবহ সংগীত, গানগুলো আর তার সাউন্ড কোয়ালিটি। সিনেমাটোগ্রাফিও চমৎকার ছিল।’

দেশের বাইরের প্রেক্ষাগৃহে বসে দেশের সিনেমা দেখার অন্য রকম ভালো লাগার অনুভূতির কথাও তিনি বলেন। তাঁর কাছে সিনেমা অন্ধকার একটি ঘরে স্বপ্ন দেখার মতো মনে হয়। কখনো তাতে বাস্তবতার ছোঁয়া থাকে, কখনো অবাস্তবও হতে পারে। বায়োস্কোপ ফিল্মসের পরিবেশনায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে মাসব্যাপী দেখানো হবে সিনেমাটি। নিখাঁদ ভালোবাসার গল্পে নির্মিত সিনেমা ‘গলুই’–এ শাকিব খানের সঙ্গে জুটি বেঁধেছিলেন পূজা চেরি।

১৯৮৯ সালে নাটকের দল নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ে যোগ দেওয়ার মধ্য দিয়ে টনি ডায়েসের অভিনয়জীবন শুরু হয়। ১৯৯৪ সালে শুরু হয় টিভি নাটকের ক্যারিয়ার। ২০০৮ সাল পর্যন্ত চার শতাধিক নাটক, ধারাবাহিক আর টেলিছবিতে অভিনয় করেছেন টনি। তাঁর অভিনীত চলচ্চিত্রের সংখ্যা দুটি—‘মেঘের কোলে রোদ’ ও ‘পৌষ মাসের পিরিত’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন