লায়ন সিনেমাসে ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত প্রায় ৫০ লাখ টাকা। মাঝে দুই সপ্তাহ বিরতি দিয়ে ঢাকার বাইরে ময়মনসিংহের পূরবী হলে ৮৬ দিন ধরে চলছে ছবিটি। গত ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত এই হলে মোট ১৪ লাখ টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে। এ ছাড়া ঢাকা ও বাইরের বিভিন্ন একক হল থেকে এসেছে ৩ কোটি টাকার বেশি। ভ্যাট, ট্যাক্স বাদ দিয়ে হলমালিকের সঙ্গে ভাগাভাগির পর টিকিট বিক্রির মোট টাকা থেকে প্রযোজকের ঘরে এসেছে প্রায় ৩ কোটি। ছবিটি মুক্তির সময় প্রযোজক সূত্রে জানা গিয়েছিল, প্রচার খরচসহ ৮৭ লাখ টাকা বাজেটের ছবি ‘পরাণ’।

ছবির পরিবেশক জাহিদ হোসেন বলেন, এক শ দিনের হিসাব পুরোপুরি হিসাব হাতে এলে টিকিট বিক্রির অঙ্ক আরও বাড়বে। পরিবেশক জানিয়েছেন, এখনো সিনেপ্লেক্সের পাঁচ শাখায় প্রতিদিন দশটি, ব্লকবাস্টার সিনেমাসে তিনটি, লায়ন সিনেমাস ও চট্টগ্রাম সিলভার স্ক্রিনে দুটি করে শো চলছে। সিনেপ্লেক্সে এখনো প্রতিদিন কিছু শো হাউসফুল যাচ্ছে। ঢাকার বাইরেও কয়েকটি একক হলে চলছে পরাণ। এ অবস্থায় দেশের প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি আরও কত দিন চলবে, নির্দিষ্ট করে বলা মুশকিল। এতে করে ‘পরাণ’–এর মোট টিকিট বিক্রি ১৫ কোটি পার হয়ে যেতে পারে বলে ধারণা করছেন ছবির পরিবেশক ও প্রযোজক।

ছবির অন্যতম প্রযোজক ইয়াসির আরাফাত বলেন, ‘বিভিন্ন হল থেকে টিকিট বিক্রির টাকার হিসাব আগে পরিবেশকের কাছে আসে। সেখান থেকে আসে প্রযোজকের কাছে। সব হিসাব এখনো আমাদের হাতে আসেনি। ছবিটি এখনো মাল্টিপ্লেক্সসহ ১১টি হলে চলছে। তাই টাকার সঠিক অঙ্ক দিতে আরও সময় লাগবে।’

দেশের প্রেক্ষাগৃহে ‘পরাণ’-এর প্রদর্শনীর এক শ দিন পূর্ণ হওয়াতে ছবির পরিচালক রায়হান রাফি বলেন, ‘এটি অবশ্যই বাংলা সিনেমার জন্য একটা ভালো খবর। বাংলা সিনেমার জন্য বড় একটি সফলতা। অনেক দিন পর একটা সিনেমা প্রেক্ষাগৃহে এক শ দিন পার  হচ্ছে,  তা–ও আবার ভালোভাবে। অনেক দিন থেকে ধুঁকতে থাকা ইন্ডাস্ট্রির জন্য এটি খুবই দরকার ছিল।’
পরাণ ছবির ‘অনন্যা’ বিদ্যা সিনহা মিম বলেন, ‘এক শ দিন হাউসফুল চলা এ ছবির শিল্পী হিসেবে আমি গর্বিত।’ তাঁর আশা, ২৮ অক্টোবর মুক্তির অপেক্ষায় থাকা দামাল ও পরাণ পাশাপাশি হাউসফুল যাবে।

মুক্তির প্রথম দিন থেকে এখনো প্রতিদিন স্টার সিনেপ্লেক্সের বেশ কটি শাখায় একাধিক শো চলছে।

এর জ্যেষ্ঠ  ব্যবস্থাপক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, সিনেপ্লেক্সের চারটি শাখায় এখনো প্রতিদিন এ ছবির ১০টি করে শো চলছে। তিনি বলেন, ‘সিনেপ্লেক্স প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে কোনো বাংলা ছবিতে ‘পরাণ’-এর মতো টিকিট সেল দেখিনি, এত দর্শকও আসেননি। দলে দলে পরিবার নিয়ে সিনেমা দেখতে আসার হিড়িক সিনেপ্লেক্সের ইতিহাসে এবারই দেখলাম। এটি বাংলা সিনেমার জন্য রেকর্ড। মনপুরা ছবিটিও ভালো চলেছিল কিন্তু সিনেপ্লেক্সের এত শাখা তখন ছিল না।’

ঢাকার বাইরে ময়মনসিংহের পূরবী হলে মুক্তির পর থেকে দুই সপ্তাহ বাদ দিয়ে এখনো চলছে পরাণ। প্রেক্ষাগৃহটির ব্যবস্থাপক দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘মুক্তির প্রথম দিন থেকে টানা চলছিল পরাণ। মাঝে নতুন দুটি ছবি তুলেছিলাম, চলেনি। আবার ‘পরাণ’ চলছে। ছবিটি এই হলে মোট ৮৬ দিন পার করছে। ২০০৩ সালের পর এই হলে এত দীর্ঘ সময় কোনো সিনেমা চলেনি।’
ঈদ উপলক্ষে গত ১০ জুলাই মুক্তি পেয়েছিল ‘পরাণ’। রায়হান রাফি পরিচালিত এ ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন শহীদুজ্জামান সেলিম, নাসির উদ্দিন খান, ইয়াশ রোহান, মামুন অপু প্রমুখ।