দীর্ঘদিন ধরেই পরিচালক মাসুদ পথিক জীবনানন্দ দাশের ‘আট বছর আগের একদিন’ কবিতা নিয়ে গল্প ভাবছিলেন। একসময় গল্প চূড়ান্ত হয়। নির্ধারিত হয় শুটিংয়ের শিডিউল। চূড়ান্ত হয় অভিনয়শিল্পী হিসেবে একঝাঁক নতুন মুখ। শুটিংয়ে যাওয়ার আগেই এই পরিচালক ভেবে বসেন আরেকটি গল্প। কবিতা নিয়ে আলাদা আরেকটি সিনেমা। সেই গল্প নির্মলেন্দু গুণ একটি কবিতা থেকে নেওয়া হয়েছে। সিনেমাটির নাম এখনো চূড়ান্ত হয়নি। পরিচালক জানান, দুটি কবিতার মধ্যে অন্য রকম দর্শন রয়েছে। তিনি মনে করেন, কখনো কবিতার মূল বিষয় রূপকে ধরা দেয়, কখনো দর্শকদের জীবনবোধ নিয়ে নতুন করে ভাবায় কবিতা। বাংলা ভাষায় এমন অনেক কবিতা রয়েছে। এই কবিতার ভাববস্তু দর্শকদের মধ্যে তুলে ধরতেই একসঙ্গে জীবনানন্দ দাশ ও নির্মলেন্দু গুণের কবিতা নিয়ে কাজ করছেন তিনি।

মাসুদ পথিক বলেন, ‘“আট বছর আগের একদিন” কবিতাটি শোনেননি, এমন কবিতাপ্রেমী খুব একটা নেই। দেখবেন, এই কবিতায় প্রকৃতির সঙ্গে মানুষের জীবন যে নিবিড়ভাবে জড়িত, সেটা ছাড়াও দার্শনিক অনেক বিষয় তুলে ধরা হয়েছে। আমরা “বক” সিনেমায় “আট বছর আগের একদিন” কবিতায় উঠে আসা চৈতন্য, মানবিক দর্শন, বিপন্নতা, শূন্যতা, বিস্ময়—এমন বিষয়গুলো সাম্প্রতিক সময়ের মধ্য দিয়ে তুলে ধরার চেষ্টা করব।’ তিনি আরও বলেন, ‘প্রকৃতি একটা নিজস্ব নিয়মে চলে। এটা মানুষ অনেক সময় বুঝতে পারে না। আবার এমনও হয়, যখন বুঝতে পারে, তখন কিছু করার থাকে না। এই বিষয়গুলো সিনেমায় উঠে আসবে।’

‘বক’ সিনেমার ইংরেজি নাম ‘সোল অব নেচার’। সিনেমায় প্রকৃতিকে ঠিকমতো তুলে ধরতে টানা ৭৫ দিন শুটিংয়ের পরিকল্পনা করেছেন পরিচালক। সিনেমায় অভিনয় করবেন একঝাঁক তরুণ মুখ, যাঁরা মঞ্চ থেকে গড়ে ওঠা। কলাকুশলী প্রায় চূড়ান্ত। অন্য সিনেমাটি নিয়ে পরিচালক বলেন, ‘নির্মলেন্দু গুণ দাদা আমার ভীষণ পছন্দের কবি। এর আগে দাদার “নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ” কবিতার থেকে সিনেমা বানিয়েছিলাম। জীবনানন্দ দাশের “আট বছর আগের একদিন” কবিতা নিয়ে সিনেমা নির্মাণের মধ্যেই নির্মলেন্দু গুণ দাদার কবিতা নিয়ে সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দেওয়াটা আমার জন্য বিশেষ। গত বুধবার আমরা চুক্তি করেছি। আশা করছি, আগামী বছর এপ্রিলেই এই সিনেমার শুটিং শুরু করব। সিনেমাটি নিয়ে এখনই কিছু বলতে চাইছি না। এখন “বক” নিয়েই বেশি ব্যস্ততা।’