default-image

এ ভয়ের কারণ প্রসঙ্গে ইরফান সাজ্জাদ জানান, দর্শকদের অন্তরে এখনো সালমান আগের মতোই আছেন। সেখানে একবার যদি সবাই সমালোচনা করেন, তাহলেই হলো। সেটা ছড়িয়ে পড়তে সময় লাগবে না।

ইরফান সাজ্জাদ বলেন, ‘আমরা শৈশবে সালমান খান, শাহরুখ খানদের চিনতাম না, চিনতাম সালমান শাহকে। তিনি ছিলেন আমাদের কাছে মহাতারকা। তাঁর মতো গোল চশমা, জামাকাপড় পরতাম। তিনি যেদিন মারা যান, সেদিন আমার মায়ের চোখেও পানি দেখিছিলাম। সব বয়সীদের কাছে সালমান শাহর জনপ্রিয়তা ছিল। এরপরে যখন সালমান শাহ রিলেটেড কোনো গল্প পাব, অবশ্যই সেটা করব। তিনি এমন এক নায়ক, যিনি সিনেমা দেখানো শিখিয়েছেন।’

default-image

জিয়াউল রোশান সালমানের নামের আগে ‘আইকনিক স্টার’ যোগ করতে চান। রোশান শৈশব থেকেই সালমানের স্টাইল অনুসরণ করেন। তিনি বলেন, ‘সালমান শাহর সিনেমা দেখে তাঁর স্টাইলটা এমনভাবে মনে গেঁথে গিয়েছিল যে তাঁর মতো অনেক পোশাকও একসময় কিনেছি। সালমান শাহকে অনুকরণ করে তাঁর মতো ছবি তুলেছি। কিন্তু একটু বড় হওয়ার পর সালমান শাহর মতো স্টাইলে ছবি তুলতেও ভয় লাগত।’

default-image

রোশান আরও বলেন,‘অনেকবারই সালমান শাহ সাজে, তাঁর মতো করে ফটোশুট করেছি। কিন্তু সব সময়ই বুকের মধ্যে শূন্যতা কাজ করেছে। এমন নায়ক ঢালিউডে হয়তো শত বছরে একজন তৈরি হবে।’

এ ছাড়া নাটকে সালমান শাহর লুকে দেখা গেছে ফারহান আহমেদকে। মুক্তিপ্রতীক্ষিত একটি সিনেমায় সালমান শাহর সাজে দেখা যাবে তরুণ অভিনেতা আফনান মিতুলকে।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন