‘নারী আসলে আটকায় জায়েদ খানে’ বলেই বিপাকে জায়েদ

জায়েদ খান
ছবি : ফেসবুক

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচনায় ‘নারী কিসে আটকায়’ ট্রেন্ড। এই ইস্যুতে এক প্রশ্নের জবাবে গতকাল ঢাকাই সিনেমার আলোচিত-সমালোচিত নায়ক জায়েদ খান বলেন, ‘নারী আসলে আটকায় জায়েদ খানে। আর সুন্দরী নারীতে আটকায় জায়েদ খান।’ টেলিভিশন সাংবাদিক ও ইউটিউবারদের করা প্রশ্নের উত্তরে মুখ খুলে এবার উকিল নোটিশ পেতে হলো এই আলোচিত–সমালোচিত নায়ককে। তাঁর বিরুদ্ধে আইনি নোটিশটি পাঠিয়েছেন মুনিমা মান্নান নামের একজন আইনজীবী।

এই আইনজীবী মনে করেন, জায়েদের বক্তব্যে নারীর প্রতি সম্মান ক্ষুণ্ণ এবং নারীকে হেয় প্রতিপন্ন করা হয়েছে। প্রচারমাধ্যমে এমন বক্তব্য কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়, যা ইতিমধ্যে ভাইরাল হয়েছে। এ কারণে তিনি জায়েদ খানকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। জানা যায়, আজ রোববার দুপুরে রেজিস্ট্রি ডাকযোগে এই আইনি নোটিশ পাঠানো হয় জায়েদ খানের ঠিকানায়।

জায়েদ খান
ছবি : ফেসবুক

‘নারী আসলে আটকায় জায়েদ খানে। আর সুন্দরী নারীতে আটকায় জায়েদ খান।’ এ ধরনের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পাঠানো আইনি নোটিশে জায়েদ খানকে উদ্দেশ্য করে বলা হয়েছে, ‘আপনার মতো বাংলা চলচ্চিত্রের একজন নায়কের এমন অশালীন, কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য আমাদের নারীদের সম্মান ক্ষুণ্ণ ও হেয়প্রতিপন্ন করে।’

মুনিমা মান্নানের সেই চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, ‘জায়েদের বক্তব্যটি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহার করার অনুরোধ থাকল। এমন কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য থেকে বিরত না থাকলে ভবিষ্যতে আপনার বিরুদ্ধে (জায়েদ খান) প্রচলিত আইনে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আরও পড়ুন

প্রথম আলোর পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে জায়েদ খান জানান, তিনি শুনেছেন, এক আইনজীবী তাঁর বিরুদ্ধে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন। তবে সেই চিঠি এখনো পাননি তিনি। জায়েদ খান বলেন, ‘আমি নারীদের কোনোভাবেই ছোট করিনি। আমি প্রত্যেক নারীকে সম্মান করি। “নারী কিসে আটকায়” প্রশ্নটা আমাকে সাংবাদিকেরা করেছেন। আমি সেই উত্তর দিয়েছি মাত্র। আমি মনে করি, নারীরা ভালোবাসায় আটকায়, মায়ায় আটকায়, স্নেহে আটকায়। এই উত্তর আমার স্বাভাবিক মনে হয়েছে। এটা নিয়ে আইনি নোটিশ দেওয়ার কিছু নেই। তবে সেই চিঠি হাতে পেলে আমি আমার আইনজীবীর মাধ্যমে বক্তব্যের ব্যাখ্যা দেব।’

আরও পড়ুন
জায়েদ খান
ছবি : ফেসবুক

এ সময় জায়েদ আরও বলেন, ‘আমার খারাপ কোনো উদ্দেশ্য নেই। আমার মধ্যে কোনো সমস্যা থাকলে নায়িকারা আমাকে নেতা বানাতেন না। আমাদের সম্মানিত নায়ক–নায়িকাদের ভোটেই আমি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির একাধিকবারের নির্বাচিত নেতা। আমার মধ্যে কোনো সমস্যা থাকলে নায়িকারা আমাকে নেতা বানাতেন না। তাঁদের সবাইকে আমি সম্মান করি।’

আরও পড়ুন