কখনো কালো, কখনো গোলাপি, সাদা, হলুদ—বাহারি সব পোশাকে ফেসবুকে ছবি পোস্ট করেন জয়া। ব্যতিক্রম সাজে জয়াকে এর আগে এভাবে দেখা যায়নি। জয়ার সেসব ছবি মুহূর্তেই ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়। সেই ছবি নিয়ে শত শত ভক্ত তাঁদের ফেসবুক ও নাটক-সিনেমার গ্রুপগুলোতে শেয়ার করেন। ভক্তদের এমনও মন্তব্য দেখা গেছে, এ যেন ষোড়শী!

অনেকে লিখেছেন, জয়ার ছবিগুলো থেকে চোখ যেন ফেরানো যায় না। ছবিগুলো নিয়ে গণমাধ্যমেও খবরের শিরোনাম হন এই অভিনেত্রী।

১ / ১০
জয়া আহসান। ছবি: সংগৃহীত

জয়া আহসানের পোস্ট করা ছবিগুলো কি শুধুই ফটোশুট, নাকি নতুন কোনো সিনেমার লুক? কেন জয়া প্রতিবারই আলাদা লুকে ছবি পোস্ট করছেন। ছবিতে ওঠে আসা জয়ার পরিবর্তন কি বিশেষ কোনো কারণে? এমন প্রশ্ন ছিল এবার জয়ার কাছে। শুনে সাধারণভাবেই জয়া বলতে থাকেন, ‘না না, এগুলো বিশেষ কারণে নয়। এগুলো সিনেমার লুকও নয়। এটাকে আমি সে রকম কিছু বলব না। একজন শিল্পীর নানা রকম ফটোশুট থাকে। নানা রকমের গেটআপে থাকতে হয়।

আর্টিস্টের তো আর মেল বা ফিমেল হয় না। যখন যেটা প্রয়োজন, সেভাবে তৈরি হতে হয়। সেই জায়গা থেকেই মাঝেমধ্যে ছবিগুলো পোস্ট করি। হয়তো বলতে পারেন, আমার ভালো লাগে, এসবই। তবে এগুলো একেবারেই সিনেমার কোনো লুক নয়।’

প্রথমবার জয়াকে দেখা যাবে হিন্দি সিনেমায়, যার প্রাথমিক নাম ‘কড়ক সিং’। সিনেমায় তাঁর সহশিল্পী হিন্দি সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা পঙ্কজ ত্রিপাঠি, মালয়ালম অভিনেত্রী পার্বতী থিরুভোথু ও বলিউড অভিনেত্রী সানজানা সাংঘি প্রমুখ। সিনেমাটি পরিচালনা করছেন অনিরুদ্ধ রায় চৌধুরী।

গত শনিবার শেষ হয়েছে সিনেমাটির শুটিং। এখনো ভারতে ব্যস্ত রয়েছেন। এ মাসেই ঢাকায় ফিরবেন। জয়ার কাছে জানতে চাই বলিউড সিনেমায় তাঁর চরিত্র কী ধরনের। এমন প্রশ্নে শুনেই চুপ হয়ে গেলেন জয়া।

৫ / ১২
জয়া আহসান। ছবি: সংগৃহীত

বললেন, ‘এগুলো এখনোই কিছু বলা যাবে না। শুধু একটুকু বলব, চরিত্রে একটা বাঙালিয়ানা আছে।’