সালামির অঙ্ক বলে চমকে দিলেন তমা

তমা মির্জাপ্রথম আলো

অভিনেতা আফরান নিশোর সঙ্গে ‘সুড়ঙ্গ’ সিনেমায় অভিনয় করে তুমুল খ্যাতি পেয়েছেন অভিনেত্রী তমা মির্জা। পাশাপাশি ‘ফ্রাইডে’, ‘৭ নম্বর ফ্লোর’সহ বেশ কয়েকটি ওয়েব সিরিজের আলোচিত নামও তমা মির্জা।

আরও পড়ুন

আরটিভির ‘ঈদ কার্নিভ্যাল’ অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে ঈদের ব্যস্ততা, কাজসহ নানা প্রসঙ্গে কথা বলেছেন তমা মির্জা।

ঈদের দিন তমা কী করেন? এই প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেন, ‘ঈদের দিন তেমন কিছু করা হয় না। সন্ধ্যা বা রাতের দিকে বন্ধুদের বাসায় দাওয়াত থাকে, সেখানে যাওয়া হয়। দুপুরের দিকে পরিবারের সঙ্গে খাবার খেতে চেষ্টা করি। বাসার মানুষের সঙ্গে খাবার খাওয়ার মজাই আলাদা। আমি পরিবারকেন্দ্রিক একজন মানুষ।’

তমা মির্জা
ছবি : তমার সৌজন্যে

অভিনেত্রীর ভাষ্য, ‘ঈদের দিন ঝগড়া না হলে আমার মনে হয় ঈদই হলো না। সকালবেলা চেঁচামেচি শুনব, এখনো গোসল হয়নি, রেডি হয়নি, এখনো সবকিছু হয়নি, এগুলো কিন্তু আমার বেশ ভালো লাগে।’

অনুষ্ঠানে সালামি প্রসঙ্গেও দারুণ চমক দিয়েছেন ‘সুড়ঙ্গ’খ্যাত এই চিত্রনায়িকা। বলেন, ‘জীবনে সর্বোচ্চ সালামি পেয়েছি আড়াই থেকে তিন লাখ টাকা। এর বেশি কখনো পাইনি। শৈশবের ঈদের স্মৃতিচারণা করে তমা বলেন, ছোটবেলার ঈদগুলোই মজার ছিল। ওই সময় অনেক কিছু বুঝতাম না, দায়িত্বও ছিল না। আর এখন উৎসব মানেই খরচ। এইটা লাগবে, ওইটা লাগবে।’

শুধু তা-ই নয়, ‘সুড়ঙ্গ’-সিনেমার মাধ্যমে তমাকে এখন পশ্চিমবঙ্গের মানুষ চেনেন, বিষয়টা তিনি কতটা উপভোগ করেন, উপস্থাপকের এমন প্রশ্নের জবাবে অভিনেত্রীর সোজাসাপ্টা উত্তর, ‘আমার মনে হয় এখনো উদ্‌যাপন করার মতো হয়নি।’

‘সুড়ঙ্গ’ ছবিতে তমা মির্জা ও আফরান নিশো
ছবি : চরকির সৌজন্যে

২০১০ সালে ‘বলো না তুমি আমার’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় তমার। পাশাপাশি বেশ কিছু চলচ্চিত্রে পার্শ্বনায়িকা হিসেবেও অভিনয় করেছেন তিনি। পাশাপাশি ‘ও আমার দেশের মাটি’ চলচ্চিত্রে নায়িকা চরিত্রে অভিনয় করে আলোচিত হন তিনি। ২০১৫ সালে ‘নদীজন’ সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করে পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।