অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ২০২২ সালে ঢাকার পাঁচ মঞ্চ—জাতীয় নাট্যশালার প্রধান মিলনায়তন, পরীক্ষণ থিয়েটার মিলনায়তন, স্টুডিও থিয়েটার মিলনায়তন, বাংলাদেশ মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তন ও মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর মঞ্চে প্রদর্শিত নতুন নাটককে পুরস্কারের জন্য বিবেচনা করা হয়েছে। এর আগে ১০ জানুয়ারি প্রতি বিভাগের তিনটি করে মনোনয়নের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করে পুরস্কার বাস্তবায়ন কমিটি। সেখান থেকে জুরিবোর্ডের রায়ে সেরা নির্বাচন করা হয়েছে।

প্রতিটি পুরস্কারের আর্থিক মূল্য ২৫ হাজার টাকা, শ্রেষ্ঠ প্রযোজনার পুরস্কার ছিল ১ লাখ টাকা; সঙ্গে স্মারক ও সনদ দেওয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। উপস্থিত ছিলেন ফেরদৌসী মজুমদার, নাসির উদ্দীন ইউসুফ প্রমুখ।

জীবদ্দশায় নানা সাংস্কৃতিক আন্দোলনে সরব থাকতে দেখা গেছে ইশরাত নিশাতকে; হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে ২০২০ সালের ২০ জানুয়ারি মারা যান তিনি। তাঁর মৃত্যুবার্ষিকীতে প্রতিবছর পুরস্কারটি দেওয়া হবে।