বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তাহলে তো কাজকর্ম এখন কমিয়ে এনেছেন?

এ মাসের মাঝামাঝি আমি এনজিওর একটি কাজে বগুড়া গিয়েছিলাম। ওখানে জ্বরে আক্রান্ত হই। দুই দিন প্রচণ্ড জ্বর ছিল। খাইতে পারছিলাম না। চোখ ব্যথা, কাশি ছিল। ভয় ও সন্দেহ থেকে কোভিড টেস্ট করাই। ফল নেগেটিভ আসে, স্বস্তি পাই।

default-image

আচ্ছা এবার বয়স কত হলো?

আমি ৩৪ বছরে পা দিলাম। বিয়ে হয়েছে, এখন আর বয়স বলতে সমস্যা কী। তা ছাড়া আমি বয়স লুকানোর পক্ষেও নই।

নায়িকাদের অনেকে আবার তো বয়স বলতে চায় না...

আমার বয়স কিন্তু ১৮ (হাসি)। ২৪ তো পার হইতে চায়ই না। (দুষ্টুমি করলাম)। আমি আসলে মনের দিক দিয়েও ৩৪, বয়সের দিক দিয়েও ৩৪, ম্যাচিউরিটির দিক দিয়েও ৩৪। সবদিক দিয়ে আমি ৩৪।

জন্মদিন এলে কেউ বলে বয়স বাড়ে, কেউ বলে কমে ...

আমি বলি, বয়স বাড়া মানে ম্যাচিউরিটি বাড়া। আমি মনে করি, জীবনের প্রতিটা বছরের আলাদা একটা সৌন্দর্য আছে। একেকটা বছরের একেকটা সৌন্দর্য। প্রতিটা বছরই আমার কাছে নতুন মনে হয়। বয়স বাড়ার সঙ্গে অনেকে বলে না আরও ইয়াং হচ্ছি। আমার কাছে ওটা মোটেও কাজ করে না। আমার মনে হয় যে বয়স বাড়ছে, আমি নিজেকে এ বয়সে কীভাবে মেনটেইন করব, সেটাই গুরুত্বপূর্ণ।

default-image

আপনার কাছে জীবন মানে কী?

জীবন উপভোগ করার বিষয়। যত দিন বেঁচে থাকব, শুধু উপভোগ করে যাব—সেটা সবকিছুর ব্যাপারে।

কোনটি উপভোগ করে বেশি উপভোগ্য মনে হয়?

আমার কাছে ট্র্যাভেল করাটা সবচেয়ে উপভোগ্য। এটা আমাকে মানসিক প্রশান্তি দেয়। ঘুরতে পারলেই আমি নিজেকে খুব সতেজ মনে করি। শুটিং করলাম পাঁচ দিন, এরপর দুই দিন আমি ঘুরব আর আড্ডা দেব। আমার বন্ধুদের সঙ্গে আমি একটা ঘণ্টা ঘুরলেও রিফ্রেশ হই, রিচার্জ হই।

আলাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন