বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ইউরোপিয়ান ব্রডকাস্টিং ইউনিয়ন মনে করে, গানের এই প্রতিযোগিতা শুধুই প্রতিযোগিতার মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়; এর মধ্যে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর মেলবন্ধনের দৃঢ়তা প্রকাশ পায়। তারা বিবৃতিতে আরও বলে, ‘আমরা এ সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতাকে উৎসাহিত করি, সাংস্কৃতিক মূল্যবোধের উন্নয়নে, যার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সংস্কৃতির বোঝাপড়া তৈরি হয়। সংগীতের মাধ্যমেই একত্র করে বিশ্বের সংগীতপ্রেমী দর্শকদের। এমনকি সংস্কৃতির এ উদ্‌যাপন ইউরোপকে এক মঞ্চে একত্র করে। রাশিয়ার এই আক্রমণে সংস্কৃতির বিচ্ছিন্নতা প্রকাশ পায়।’

default-image

গানের এ প্রতিযোগিতার মূল আয়োজন শুরু হবে আগামী ১৪ মে। ৬৬তম এ প্রতিযোগিতার জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে ইতালিকে। করোনার পরিস্থিতি বুঝে এবারের আয়োজন আরও বড় পরিসরে করার প্রস্তুতি চলছে। এ আয়োজন তরুণ শিল্পীদের জন্য অনেক আগ্রহের। এর আগের বছর রাশিয়ার প্রতিযোগী ম্যেনিজহা এ প্রতিযোগিতায় ৯ নম্বর জায়গায় স্থান করে নিয়েছিলেন। গত বছর সীমিত পরিসরে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল। এতে বিশ্বের ৩৯টি দেশ অংশগ্রহণ করে।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন