বিজ্ঞাপন

অ্যাঞ্জেলিনা জোলি দীর্ঘদিন ধরে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার (ইউনাইটেড নেশনস হাই কমিশনার ফর রিফিউজিস, ইউএনএইচসিআর) পক্ষে কাজ করছেন। এবার বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে মৌমাছির আড়াই হাজার বাসস্থান গড়ে তোলার যৌথ উদ্যোগ নিয়েছে ইউএনএইচসিআর, ইউনেস্কো ও ফরাসি প্রতিষ্ঠান গার্লেইন। এমনকি সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণের ব্যবস্থাও করবে তাঁরা।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ২০২৫ সাল নাগাদ মৌমাছিদের ঘরে জন্ম নেবে ১২ কোটি ৫০ লাখ মৌমাছি, যারা প্রকৃতিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এ উদ্যোগের সঙ্গে কাজ করবেন একঝাঁক নারী। এ কারণে উদ্যোগটির নাম দেওয়া হয়েছে উইমেন ফর বিস।

default-image

১৯৮১ সালে মার্কিন আলোকচিত্রী রিচার্ড এভেডনের তোলা বিখ্যাত আলোকচিত্র ‘দ্য বি কিপার’–এর আদলে মৌমাছির সঙ্গে সম্প্রতি তোলা হলো অ্যাঞ্জেলিনা জোলির ছবি। মূলত ‘উইমেন ফর বি’ উদ্যোগটিকে তুলে ধরতেই এ আয়োজন, যেখানে ‘বি কিপার’ রূপে দেখা দিলেন জোলি। এক টুইটে এসব তথ্য জানিয়েছে গার্লেইন।

default-image

আলোকচিত্রী ড্যান উইন্টার্স ইনস্টাগ্রাম পোস্টে মৌমাছি গায়ে জোলির ছবি ও ভিডিও শেয়ার করে ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘এই ফটোশুটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জ ছিল সবাইকে নিরাপদ রাখা। মৌমাছিগুলো যাতে রেগে না যায়, সে জন্য ঘরের বাতিগুলো নেভানো ছিল। খুব অল্প আলোয় ছবিগুলো তোলা হয়। মৌমাছিরা যাতে গিয়ে বসে, সে জন্য জোলির শরীরে লাগিয়ে দেওয়া হয় ফেরোমন। আমরা তুলনামূলক শান্ত ইতালীয় মৌমাছি ব্যবহার করেছি। জোলিকে বলা ছিল, ছবি তোলার সময় যেন একটুও নড়াচড়া না করেন।’

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন