হলিউড অভিনেত্রী সালমা হায়েক অভিনয় করছেন মার্ভেলের সুপারহিরো সিনেমায়। এ যেন তাঁর নিজের কাছেও আশ্চর্যের! ছবির চুক্তিতে সই করার সময়ও তাঁর ধারণা ছিল না, কী করতে যাচ্ছেন। চিত্রনাট্য না দেখেই এই সিনেমা করতে রাজি হয়েছিলেন। মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের ছবি দ্য এটারনালস-এর অ্যাজাক্স তিনি। যখন তাঁকে ছবিতে নেওয়া হয়, তখন কমিক নিয়ে তাঁর কোনো ধারণাই ছিল না। বিশেষ করে লুকিয়ে পৃথিবীতে বাস করা ওই এলিয়েন নিয়ে তাঁর কোনো মাথাব্যথাও নেই।

default-image

সালমা হায়েকের মতো এত বড় অভিনেত্রীর কাছে বিষয়টি খুবই অস্বস্তির যে কোনো কিছু না জেনে তাঁকে এই ছবিতে সই করতে হয়েছিল। সালমা বলেন, ‘আমার এজেন্ট আমাকে বলল, এটা মার্ভেল ফ্র্যাঞ্চাইজির সিনেমা। আমি বললাম, ও মাই গড, বলো কি! আমি চোলে ঝাওয়ের সঙ্গে কাজ করছি। আমি তাঁর সঙ্গে জুমে কথা বলার সময় বেশ রোমাঞ্চিত হয়েছি। অসধারণ মুহূর্ত ছিল একটা।’

default-image
বিজ্ঞাপন

ছবিটি নিয়ে দীর্ঘ সময় চুপ ছিলেন সালমা। কারণ, ছবিটি নিয়ে শুরুর দিকে যাঁদের সঙ্গে আলাপ হয়েছে, সালমা তাঁদের একজন। সালমা বলেন, ‘আমাকে দীর্ঘদিন গোপন করতে হয়েছিল এ খবর। প্রথম যখন আমাকে তারা ফোন করে, আমি বললাম, আমি সবকিছু জানতে চাই। এটারনালস–এ কে কে আছে? তারা কি কমিকে আছে? আমি তো জানি না অ্যাজাক্স কে? পরে তাঁরা আমাকে সবকিছু খুলে বলল। চিত্রনাট্য নিয়ে বলল। সেখানে অদ্ভুত একটা ব্যাপার ছিল। চুক্তি সই করার আগপর্যন্ত স্ক্রিপ্ট প্রসঙ্গে কিছুই জানায়নি তারা। এটা ছিল অস্বস্তিকর এক ব্যাপার।’

default-image

সুপারহিরোদের অদ্ভুত সব পোশাকে সালমার বেজায় অস্বস্তি। কিন্তু এটারনালস-এর শুটিং সেটে গিয়ে সালমা পুরোই অবাক। শুটিং দেখে সালমার মনে হলো, মার্ভেলের অন্য সিনেমা থেকে এটি একদমই আলাদা। সালমা বলেন, ‘পোশাক নিয়ে আমি খুবই ভয়ে ছিলাম। কারণ, আমি ভেবেছি, আমি নড়তে–চড়তে পারব না। কিন্তু এই সিনেমা মার্ভেলের অন্য সব সুপারহিরো সিনেমা থেকে একদম আলাদা। অন্য সিনেমা থেকে এর শটগুলো নেওয়া হয়েছে আলাদা করে। একদমই বাস্তব লোকেশনে শুট হয়েছে। চিত্রগ্রহণও ছিল চমৎকার।’

default-image
হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন