বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

হ্যালির প্রেমিকের নাম ভ্যান হান্ট। তিনি একজন শিল্পী। ২০০৪ সালে তাঁর প্রথম অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। পরে আরও চারটি অ্যালবাম বেরিয়েছে। বিশ্বসংগীতের গুরুত্বপূর্ণ অ্যাওয়ার্ড গ্র্যামিও জিতেছেন তিনি। পাশাপাশি জিতে নিয়েছেন ৫৫ বছর বয়সী হ্যালির হৃদয়। এ কারণেই যেখানেই সুযোগ পেয়েছেন, হান্টের কথা বলেছেন তিনি। সম্প্রতি এক হেলথ ম্যাগাজিনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিজের সম্পর্ক নিয়ে বেশ খোলামেলা কথা বলেছেন হ্যালি। তিনি বলেন, ‘নিজেকে আমার বেশ সৌভাগ্যবতী বলে মনে হয়। রোমান্টিকতার দিক থেকে মা ও শিল্পী হিসেবে আমি সুখী।’ হান্টের সঙ্গে সম্পর্ক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্রেমটা হয়েছে বলেই মনে হয় আমি অনেক ভালো মা হতে পেরেছি। যদি এই রোমান্টিক না জড়াতাম, যদি প্রেম না পেতাম, তাহলে একজন নারী হিসেবে ভালো থাকতে পারতাম না। আমাদের সব সময় নিজের প্রতি যত্নবান হওয়া উচিত। কারণ, মানুষ হিসেবে যদি ভালো না থাকি, তাহলে সন্তানদের একজন ভালো মা হতে পারব না।’

হ্যালির দুই ছেলে–মেয়ে। নাহলা এরিয়েলার বয়স ১৩, আর ম্যাসিও রবার্টের ৪ বছর। ম্যাসিওর বাবা অলিভিয়ার মার্টিনেজের সঙ্গে ২০১৬ সালে বিচ্ছেদ হয় হ্যালির। নাহলার বাবা গ্যাব্রিয়েল অব্রি থেকেও এরই মধ্যে কোনো একসময় বিচ্ছিন্ন হন হ্যালি। তবে সন্তানদের নিজের কাছেই রেখেছেন হ্যালি। তাদের নিজের পায়ে দাঁড়ানোর জন্য সহযোগিতা করছেন। হ্যালি তার মেয়েকে বলেছেন, ‘নিজের স্বর ব্যবহার করো। তোমার শোনারও অধিকার আছে। তুমি যেমন, সেভাবেই লোকে তোমাকে ভালোবাসবে এবং গ্রহণ করবে। তুমিই ঠিক করবে, তুমি কে।’ হ্যালি বলেন, ‘আমি ওদের শিখিয়েছি, নিজের তালে এগিয়ে যেতে। কারও অনুসারী না হয়ে যেন নিজেই উদ্যোক্তা হয়, নেতৃত্ব দেয়।’

default-image

হলিউড অ্যাওয়ার্ডের সময়ও এলি উইমেন সাময়িকীকে নিজের প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে খোলামেলা কথা বলেছিলেন হ্যালি। তিনি বলেছিলেন, ‘আমাকে টেনে তোলার মতো কোনো মানুষ ছিল না। এত দূর যে এসেছি, পুরোপুরি নিজের চেষ্টায়।’ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের লালগালিচায় পিপল টিভি শোর বিশেষ সংবাদদাতা অ্যাড্রিয়ানা কস্তার সঙ্গে আলাপকালে হ্যালি বলেছিলেন, ‘ব্রুজড’–এ কাজ করার সময় হান্ট পাশে ছিলেন। তিনি বলেন, ‘তাঁকেই আমি পাশে পেয়েছিলাম। ছবিটির টাইটেল গানটি করেছিলেন তিনি।’ আরেক সাময়িকী এক্সট্রা জিজ্ঞেস করেছিল, আপনারা কি প্রেমে দিওয়ানা হয়ে আছেন? হ্যালি বলেন, ‘থাকবই তো। এ আমার অপেক্ষার ফল। জীবনে কিছু কিছু ঘটনার জন্য অপেক্ষা করতে হয়। আমি ধৈর্য ধরে অপেক্ষায় ছিলাম। ধৈর্য না ধরলেও আমি আসলে অপেক্ষাটা করেছিলাম।’

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন