default-image

স্বামী ক্লিফোর্ড চ্যাটার্লি পঙ্গু। যুদ্ধে পা হারিয়েছেন। ওদিকে প্রেমিক সুদর্শন ওলিভার মেলরস। পেশায় বাগানের মালি। উচ্চবিত্ত, কেতাদুরস্ত কনস্ট্যান্স রেইড ওরফে লেডি চ্যাটার্লি কী করবেন? নটিংহ্যামশায়ারের উঁচুতলার এই নারী পঙ্গু স্বামীকে সঙ্গ দেবেন? নাকি বাগানের মালি ওলিভারের প্রেমে বুঁদ হবেন। হুইলচেয়ারে বসে থাকা স্বামী আর সুদর্শন মালির মধ্যে লেডি চ্যাটার্লিকে ছেড়ে দিয়েছিলেন ইংলিশ লেখক ডি এইচ লরেন্স, লেডি চ্যাটার্লিজ লাভার বইয়ে।

ইউরোপে প্রকাশিত এই বই ঝড় তোলে। শুধু মনের ঘরেই যে প্রেম সীমাবদ্ধ নয়, শরীরের আকর্ষণও যে গুরুত্বপূর্ণ, তা লিখলেন লরেন্স। তাঁর সঙ্গে কুড়িয়ে নিয়ে এলেন এই কথা—প্রেম শ্রেণি মানে না। কিন্তু সে সময়ের উচ্চবিত্ত ইউরোপীয় সমাজ এটি মানতে পারেনি। মামলা হয়ে যায় বইটির বিরুদ্ধে। অশ্লীলতার দায়ে বইটি নিষিদ্ধ হয়। তবে অনেক যুক্তি–তর্কের পর আবার বেরোয় বইটি, দীর্ঘ সময় পেরিয়ে। মুহূর্তে নিঃশেষ হয়ে যায় সবগুলো কপি।

বিজ্ঞাপন
default-image

এই লেডি চ্যাটার্লি বইয়ের পাতা থেকে রুপালি পর্দায় উঠে আসছেন। আর সেই চরিত্রে দেখা যাবে এমা করিনকে। এই তো, বেশি দিন নয়। গোল্ডেন গ্লোবে প্রিন্সেস ডায়ানা হয়ে পুরস্কার বাগিয়ে নিলেন। লরা দু ক্লেমন্ত-তোনোরে পরিচালনা করবেন ছবিটি। পাণ্ডুলিপি লিখছেন ‘লাইফ অব পাই’ ছবির লেখক ডেভিড ম্যাগি, জানিয়েছে ডেডলাইন সাময়িকী। তবে লেডি চ্যাটার্লি যে এবারই প্রথম রুপালি পর্দায় আসছেন, এমনটি নয়। এর আগেও এই উপন্যাস অবলম্বনে টিভি সিরিজ ও চলচ্চিত্র তৈরি হয়েছে।

নেটফ্লিক্সের সিরিজ ‘দ্য ক্রাউন’ এর প্রিন্সেস ডায়ানা চরিত্রে অভিনয় করে এমনিতেই চাঙা এমা। গোল্ডেন গ্লোবের ট্রফি সেখানে জুগিয়েছে বাড়তি প্রেরণা। হলিউডকেন্দ্রিক বেশ কয়েকটি পোর্টাল প্রতিবেদন করেছে এ বিষয়ে। যদিও এমা করিন এখনো চুপ, কিছুই বলেননি এ বিষয়ে।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন