default-image

রোববার স্থানীয় আইনজীবীদের বরাত দিয়ে ইতালির গণমাধ্যমে প্রখ্যাত এই পরিচালককে গ্রেপ্তারের খবর প্রকাশের পর বিশ্বজুড়ে আলোচনা শুরু হয়। ভ্যারাইটি জানিয়েছে, চলচ্চিত্রবিষয়ক অনুষ্ঠান অ্যালোরা ফেস্টে যোগ দিতে ইতালিতে গিয়েছিলেন পরিচালক। ২১ থেকে ২৩ জুন ইতালির ওস্টুনি শহরে হওয়ার কথা ছিল অনুষ্ঠানটি। যেখানে চলচ্চিত্র নিয়ে বেশ কয়েকটি ‘মাস্টারক্লাস’-এ অংশ নেওয়ার কথা ছিল পরিচালকের।

default-image

হ্যাগিসের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি এক বিদেশি তরুণীকে (ইতালীয় নন) দুই দিন ধরে ধর্ষণ ও আঘাত করেছেন। হ্যাগিসের নির্যাতনের কারণে ওই তরুণীকে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ইতালির পুলিশের বয়ানে বলা হয়েছে, গত শুক্রবার সকালে হ্যাগিস ওই তরুণীকে ব্রিনদিসির পাপোলা ক্যাসেল বিমানবন্দরে ফেলে যান। পরে তাঁকে উদ্ধার করে শারীরিক ও মানসিকভাবে ‘অনিশ্চিত’ অবস্থায় উদ্ধার করেন বিমানবন্দরের কর্মচারীরা। প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর ওই তরুণীকে ভ্রাম্যমাণ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে হ্যাগিসের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন তিনি। ওই তরুণী এখন ব্রিনদিসির পেরিনো হাসপাতালের ‘পিংক প্রটোকল’-এ চিকিৎসাধীন। এই প্রটোকলের আওতায় ধর্ষণের শিকার নারীদের চিকিৎসা দেওয়া হয়।

default-image

হ্যাগিসের দীর্ঘদিনের আইনজীবী প্রিয়া চৌধুরী এক বিবৃতিতে পরিচালকের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমি আত্মবিশ্বাসী, তাঁর বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ খারিজ হয়ে যাবে। তিনি পুরোপুরি নির্দোষ এবং স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে পূর্ণ সহযোগিতা করছেন, যাতে দ্রুত সত্য বেরিয়ে আসতে পারে।’
হ্যাগিসকে গ্রেপ্তারের পর অ্যালোরা ফেস্ট কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘সহিংসতার অভিযোগে পল হ্যাগিসের গ্রেপ্তারের খবর আতঙ্ক ও ধাক্কা হয়ে এসেছে।’ একই সঙ্গে পরিচালকের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদের কথাও জানায় উৎসব কর্তৃপক্ষ।
এই প্রথম নয়, এর আগেও হ্যাগিসের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছিল। ২০১৮ সালে হেলি ব্রেস্ট নামে এক নারী পরিচালকের বিরুদ্ধে নৃশংসভাবে ধর্ষণের মামলা করেন। পরিচালক সে অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন। কোভিডের কারণে বারবার শুনানি পেছানোয় সেই মামলার রায় এখনো হয়নি।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন