জেগলার কি পারবেন লরেন্স হতে

র‍্যাচেল জেগলার। ছবি: রয়টার্স

১১ বছর আগে মুক্তি পেয়েছিল ‘দ্য হাঙ্গার গেমস’ সিনেমা সিরিজের প্রথম কিস্তি, পরে পায় আরও ৩টি। এই সিরিজের সিনেমা দিয়েই বিশ্বজুড়ে পরিচিতি পান জেনিফার লরেন্স। পরে বিভিন্ন ঘরানার সিনেমা করে লরেন্স হয়ে ওঠেন এই সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী, জেতেন অস্কার।

আরও পড়ুন

আট বছর বিরতির পর গত ১৭ নভেম্বর মুক্তি পেয়েছে এই সিনেমা সিরিজের নতুন সিনেমা ‘দ্য হাঙ্গার গেমস: দ্য ব্যালাড অব সংবার্ডস অ্যান্ড স্নেকস’। এতে অভিনয় করেছেন তরুণ অভিনেত্রী র‍্যাচেল জেগলার। সমালোচকদের প্রশ্ন, এই সিনেমা দিয়ে তিনিও কি লরেন্স হতে পারবেন?

২২ বছর বয়সী মার্কিন গায়িকা ও অভিনেত্রী জেগলারের শুরুটা ছিল চমক–জাগানিয়া। ২০২১ সালে স্টিভেন স্পিলবার্গের ‘ওয়েস্ট সাইড স্টোরি’ দিয়ে অভিষেক, এ ছবিতে মারিয়া চরিত্রে অভিনয় করে জেতেন গোল্ডেন গ্লোব। এবার তিনি হাজির ‘দ্য হাঙ্গার গেমস’-এর পঞ্চম কিস্তির লুসি হয়ে।

র‍্যাচেল জেগলার। ছবি: রয়টার্স

এই সিরিজের সিনেমায় অভিনয় করলে ঘুরেফিরে লরেন্সের সঙ্গে তুলনা আসবেই। ছবির প্রচারে ‘দ্য কেলি ক্লার্কসন শো’তে হাজির হয়ে জেগলার কথা বলেন এ প্রসঙ্গে। তিনি জানান, কিছুদিন আগে প্যারিস ফ্যাশন উইকে প্রথমবার লরেন্সের সঙ্গে দেখা হয় তাঁর। জেগলার বলেন, ‘এটা ছিল দুর্দান্ত এক অভিজ্ঞতা। তিনি খুবই বিনয়ী একজন, আমরা একসঙ্গে কথা বলেছিলাম; ছবি তুলেছিলাম। শুরুতে আমি খুব নার্ভাস ছিলাম, পরে সহজ হই।’

জেগলার জানেন, লরেন্স অভিনীত কাটনিস চরিত্র এর মধ্যেই মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে। তাঁকে ওই পর্যায়ে যেতে হলে অনেক কষ্ট করতে হবে।

‘দ্য হাঙ্গার গেমস: দ্য ব্যালাড অব সংবার্ডস অ্যান্ড স্নেকস’ সিনেমার দৃশ্য। আইএমডিবি

তবে সিনেমার পরিচালক ফ্রান্সিস লরেন্স মনে করেন, এই দুই চরিত্রের মধ্যে তুলনাই হওয়া উচিত না। তিনি এম্পায়ার সাময়িকীকে বলেন, ‘কাটনিস ও লুসির মধ্যে অনেক পার্থক্য আছে। প্রথমজন অন্তর্মুখী, সে সারভাইভার। অন্যদিকে লুসি পুরো উল্টো চরিত্রের। সে পারফরমার, ভিড় পছন্দ করে। সে জানে কীভাবে মানুষকে নিজের কাজে ব্যবহার করা যায়।’

এর আগে মার্কিন সাময়িকী ভ্যারাইটিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লরেন্স নিজে বলেছিলেন, সুযোগ পেলে তিনি আবারও কাটনিস চরিত্রে অভিনয় করতে চান। তবে প্রযোজক ও পরিচালক জানিয়েছেন, এ সম্ভাবনা আর নেই বললেই চলে।